রবিবার, জুন ৭, ২০২০ | ০২:০৪
২৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ | ১৩ শাওয়াল, ১৪৪১
আনন্দ ভুবন

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> গেজেট প্রকাশের মাধ্যমে তথ্য মন্ত্রণালয় ২০১৭ ও ২০১৮ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া শিল্পীদের নাম ঘোষণা করেছে বৃহষ্পতিবার (৭ নভেম্বর)। গেজেটে ঘোষণা অনুযায়ী আজীবন সম্মাননার তালিকায় ২০১৭ সালে রয়েছে এটিএম শামসুজ্জামান ও সুজাতার নাম। ২০১৮ সালের জন্য আজীবন সম্মাননা পাবেন প্রবীর মিত্র। তার সঙ্গে যৌথভাবে আজীবন সম্মাননা পেয়েছেন চিত্রনায়ক আলমগীর।
আগামী বছরের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই গুণীজনদের হাতে আজীবন সম্মাননা তুলে দেবেন।
এদিকে দুই বছরের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘোষণায় ২০১৭ সালের সেরা ছবি ‘ঢাকা অ্যাটাক’ এবং ২০১৮ সালের সেরা ছবি ‘পুত্র’। সেরা পরিচালক হয়েছেন ২০১৭ সালের ছবি ‘গহীন বালুচর’র নির্মাতা বদরুল আনাম সৌদ। ২০১৮ সালের সেরা নির্মাতা হিসেবে পুরস্কার জিতেছেন ‘জান্নাত’ ছবির পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান মানিক।
২০১৭ সালে যৌথভাবে সেরা নায়ক হয়েছেন ‘সত্তা’ ছবির জন্য শাকিব খান ও ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির জন্য আরিফিন শুভ। ২০১৮ সালে ‘পুত্র’ ছবি দিয়ে সেরা অভিনেতা হয়েছেন ফেরদৌস এবং ‘জান্নাত’ ছবি দিয়ে সেরা অভিনেতা সাইমন সাদিক।
সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন ২০১৭ সালে ‘হালদা’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য নুসরাত ইমরোজ তিশা এবং ২০১৮ সালে ‘দেবী’ ছবিতে অভিনয় করা জয়া আহসান।

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> শুক্রবার থেকে বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে জয়া আহসান অভিনীত শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও নন্দিতা রায়ের আলোচিত ছবি ‘কণ্ঠ’। সাফটা চুক্তির ভিত্তিতে বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি।বিনিময়ে কলকাতায় যাচ্ছে জয়া আহসান অভিনীত আরেকটি ছবি খাঁচা।
বাংলাদেশে ‘কণ্ঠ’র মুক্তি উপলক্ষে বুধবার (৬ নভেম্বর) চ্যানেল আইয়ের ছাদ বারান্দায় অনুষ্ঠিত হলো সংবাদ সম্মেলনের। যেখানে শিবপ্রসাদ ও নন্দিতা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জয়া আহসান ও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার।
সর্বশেষ বাংলাদেশে জয়া অভিনীত ও প্রযোজিত দেবী ছবি মুক্তি পায়। এই কণ্ঠের মাধ্যমে দেবীর পর বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে জয়ার ছবি মুক্তি পাচ্ছে। কণ্ঠের বেলায়ও দেবীর মতোই দৌড়ঝাঁপ করছেন জয়া। এই দৌড়ঝাঁপের কারণ হিসেবে জানালেন, তার অভিনীত প্রথম কোনো ভারতীয় ছবি, যা মুক্তি পাচ্ছে বাংলাদেশে। তাই ছবিটির খবর বাংলাদেশের দর্শকদের কাছে পৌছে দেয়ার অনুরোধ রাখলেন সাংবাদিকদের কাছে।
জয়া আহসান বলেন ‘কণ্ঠ’ ছবিটি আমার জন্য একটি জার্নির মতো। জীবনকে কাছ থেকে দেখা, লড়াই করে বেঁচে থাকা মানুষগুলোকে দেখা, কী যে অনুপ্রেরণার ছিলো আমার জন্য! আমাকে এমন একটি যাত্রায় সামিল করায় আমি কৃতজ্ঞতা জানাই নির্মাতা শিবপ্রসাদ ও নন্দিতা দিদিকে। আমার উপর ভরসা করেছেন তারা, এটা আমার জন্য গর্বের।
এই চরিত্রটি তার ক্যারিয়ারে উজ্জ্বল হয়ে থাকবে। এমন আশাবাদ ব্যক্তি করে জয়া আরও বলেন: জীবনে প্রচুর চরিত্রে অভিনয় করেছি। কিন্তু সব সময়ইতো সব চরিত্র গুরুত্বপূর্ণ বা দাগ কেটে যায় না, আবার কিছু চরিত্র আছে যেগুলো থেকে যায়, মনে গেঁথে যায়। শিল্পীর জীবনেও আঁচড় কেটে যায়। ‘কণ্ঠ’ ছবিতে ঠিক তেমন একটি চরিত্র আমার। আমার ভীষণ আত্মতৃপ্তি রয়েছে এই চরিত্রটি করে, এই ছবিতে অভিনয় করে।
বাংলাদেশে ‘কণ্ঠ’ ছবিটির পরিবেশনা করছে ইমপ্রেস টেলিফিল্ম। ছবিটিতে অভিনয় করতে গিয়ে নানা অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছেন জয়া। সেই অভিজ্ঞতার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, এই ছবিটি করতে গিয়ে আমি এমন কিছু মানুষের সাথে সাক্ষাৎ করেছি, ক্যানসার আক্রান্ত অনেক মানুষের সাথে কথা বলেছি। তাদের কাছ থেকে এতো জীবনীশক্তি পেয়েছি, তখন আমার মনে হয়েছে আমরা যে বেঁচে আছি, এটাইতো সবচেয়ে বড় ঘটনা! পরিবারের সবচেয়ে ছোট সদস্য থেকে শুরু করে সবচেয়ে বয়োজৈষ্ঠ্য ব্যক্তিটিকেও ‘কণ্ঠ’ ছবিটি আকর্ষণ করবে। সবারই দেখা উচিত।
এর আগে মে মাসে ভারতে মুক্তি পায় শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও নন্দিতা রায়ের ‘কণ্ঠ’। মাত্র এগারো দিনে ছবিটি ২ কোটি রুপির বেশি আয় করেছে বলে জানান ছবিটির পরিচালক। এবার ছবিটি মালায়ালাম ভাষাতেও রিমেক হচ্ছে বলেও জানান তিনি।
একজন বাচিক শিল্পীর (রেডিও জোকি) দুরারোগ্য ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে কণ্ঠ হারানোর এক মর্মস্পর্শী গল্প আর সেই কণ্ঠ ফিরে পাওয়ার লড়াই নিয়ে তৈরি হয়েছে ছবিটি। ছবিতে জয়া আহসান ও পাওলি ছাড়াও অভিনয় করেছিলেন শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, চিত্রা সেন, বিপ্লব দাশগুপ্ত প্রমুখ।

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> আবুধাবিতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘টি-টেন’ ক্রিকেট লীগ। তৃতীয়বারের এ আয়োজনের শূরুটা বেশ জমকালোই হবে। এ আয়োজনেই পাকিস্তানের আতিফ আসলাম, বলিউড নোরা ফাতেহিদের সঙ্গে এক মঞ্চে পারফর্ম করবেন শাকিব খান।
বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের প্রতিষ্ঠান রেড চিলিজ এন্টারটেইনমেন্টের ব্যানারে এ আয়োজনে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বাংলাদেশ থেকে একমাত্র শাকিব খানকেই আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।
রেড চিলিজের কয়েকজন কর্মকর্তা গত সপ্তাহে বাংলাদেশে এসে শাকিব খানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বলে জানিয়েছেন ঢালিউডের এ সুপারস্টার। শাকিব খান বলেন, রেড চিলির চিলির একটি প্রতিনিধি দল আমন্ত্রণ নিয়ে আসে। তাদের কথা দিয়েছি অনুষ্ঠানটিতে অংশ নেব।’
বাংলা গানের পাশাপাশি হিন্দি গানেও পারফর্ম করা হতে পারে বলেও জানান এ নায়ক। এ জন্য আগামী ১২ নভেম্বর আবুধাবির উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বেন শাকিব খান। পারফর্ম করবেন ১৪ নভেম্বর।

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> জ্বীন-ভূতের গল্প শুনতে শুনতেই বড় হওয়া প্রায় প্রতিটি বাঙ্গালীর। শৈশবে ভয়ংকর দৈত্য দানবের গল্পের সঙ্গে জ্বীন ভূতের গল্পও শিহরণ জাগাতো মনে। এই জ্বীন-ভূত মানেই যেনো বড় বড় হাতে নখ, দাত এবং ভয়ংকর চোখের কেউ। সম্প্রতি এমন জ্বীন-ভূতের মতোই দেখা দিলেন চিত্রনায়িকা পূজা চেরি।
‘জ্বীন’ নামে নতুন একটি ছবিতে অভিনয় করছেন পূজা চেরি। ছবিটির মাধ্যমে প্রথমবার নাটকের জনপ্রিয় অভিনেতা আব্দুন নূর সজলের সঙ্গে জুটি হয়েছেন তিনি। বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ছবিটিরই ফার্স্ট লুক প্রকাশিত হল। যাতে ভৌতিক চেহারা নিয়ে হাজির হয়েছেন নায়িকা পূজা চেরী। দেখে যেনো চেনার উপায় নেই সে পূজা। তবে ভয় জাগিয়ে দেবে।
সিনেমাটি নির্মাণ করছেন নাদের চৌধুরী। জাজ মাল্টিমিডিয়া প্রযোজিত এই সিনেমাটি নিয়ে নাদের চৌধুরী বলেন, এটি একটি সাইকো থ্রিলার গল্পের ছবি। ছবিতে পূজা মোনালিসা চরিত্রে অভিনয় করছে। ছবিতে পূজারওপর একটা জ্বিন ভর করে। এরপর থেকেই নানা রকম অতি প্রাকৃত ঘটনা ঘটে।
সিনেমাটির শুটিং প্রায় শেষের দিকে। বাকি আছে গানের কিছু শুটিং। সব কিছু হয়ে এলে চলতি বছরের ডিসেম্বরেই মুক্তি দেয়ার কথা জানালেন পরিচালক।
ছবিটিতে নিজের চরিত্র নিয়ে পূজা চেরি বলেন, ছবিতে আমার চরিত্রের নাম মোনালিসা কিন্তু সবাই আদর করে ‘মোনা’ বলে ডাকে। এটা একটা ভৌতিক ছবি। জ্বিন নিয়েই ছবির গল্প। আর এই ছবিতে জ্বিনটা আমার উপরেই ভর করে। ছবিটা নিয়ে শুধু বলবো শুরুটা বেশ ভালোই হয়েছে আশা করছি দর্শকরা সিনেমাটি পছন্দ করবেন।
ছবিতে সজল-পূজা ছাড়াও অভিনয় করছেন- রোশান, মুন, সুজাতা, বেবি, রফিক, নবী ও হিরা প্রমুখ।

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০১৯-২১ মেয়াদে আবারো সভাপতি পদে বিজয়ী হয়েছেন মিশা সওদাগর। এবার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন জায়েদ খান।
সব জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) রাত ১টার দিকে নির্বাচনের ফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চন।
ইলিয়াস কাঞ্চন জানান, এবার ২১টি পদের বিপরীতে ২৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। মোট ভোটার ৪৪৯ জন। এর মধ্যে ভোট দিয়েছেন ৩৮৬জন। এতে সভাপতি পদে ২২৭ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন মিশা সওদাগর তার নিকতম প্রতিদ্বন্দ্বি চিত্রনায়িকা মৌসুমী পেয়েছেন ১২৫ ভোট। জায়েদ খান ২৮৪ ভোট পেয়ে সাধারণ সম্পাদক পদে জয়ী হয়েছেন। তার নিকতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্রপ্রাথী ইলিয়াস কোবরা পেয়েছেন ৬৮টি ভোট।
নির্বাচিত হওয়ার পর মিশা শওদাগর বলেন, ‘সবার দোয়া ও ভালোবাসায় আবারও জয়ী হতে পেরেছি। চলচ্চিত্রের সব শিল্পী, কলাকুশলীসহ এফডিসিসহ সবার কাছে আমি কৃতজ্ঞ। জয়ী হওয়ার পরই আমার প্রথম কাজ হবে ইশেতেহারে যা যা বলেছিলাম তার বাস্তবায়ন ঘটানো। শিল্পীদের সবাইকে নিয়ে চলচ্চিত্রের উন্নয়নে কাজ করে যাব। আমাদের গতবার যে কাজগুলো করা হয়নি সেগুলো এবার পূরণ করবো।’
নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, ‘চলচ্চিত্র শিল্পীরা যাতে সম্মানের সঙ্গে মাথা উঁচু করে বাঁচতে পারে, আমরা সেই ব্যবস্থা করব। শিল্পীরা কেউ হারেনি। আমরা আগামীতে যেন বিগত বছরের কাজের গতিটা ধরে রাখতে পারি সবার কাছে এই দোয়াই চাই। শিল্পী সমিতির সকল ভোটারদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। তারা আমাদের প্যানেলকে ভালোবেসে ও বিশ্বাস করে আবারও ভোট দিয়ে জয়ী করেছেন। এবার আমাদের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ঠিক রেখে সমিতিকে আরও উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাওয়ার পালা।
এবারের নির্বাচনে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় বাংলাদেশ শিল্পী সমিতির ২০১৯-২১ মেয়াদি নির্বাচনে তিন পদে বিনা বাধায় নির্বাচিত হয়েছে তিনজন। তারা হলেন সাংগঠনিক সম্পাদক পদে সুব্রত, দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক পদে জ্যাকি আলমগীর ও কোষাধ্যক্ষ পদে ফরহাদ। ভোট গ্রহণের আগে নির্বাচন কমিশন যখন চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে। সেখানে ওই তিন পদে তিনজনকে নির্বাচিত ঘোষণা করেন। তিনজনই মিশা-জায়েদ প্যানেলের। দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক পদে জ্যাকি আলমগীরের একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী মো. সাইফুলের মনোনয়নপত্রটি সমিতির গঠনতন্ত্রের ৯(৩) ধারায় বাতিল হয়ে গেছে বলে জানানো হয়।
শিল্পী সমিতির এবারের নির্বাচনে সহ সভাপতি পদে জয়ী হয়েছেন ডিপজল (৩১১) ও রুবেল (২৯৩)। সহসাধারণ সম্পাদক পদে জয়ী হন আরমান (২৮৯), সম্পাদক পদে জয়ী মামুনুন ইমন (২৪৭)। সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে জয়ী হন জাকির হোসেন (২৩০)
নির্বাচনে ১১টি কার্যকরী সদস্য পদে নির্বাচিত হয়েছেন অঞ্জনা সুলতানা (৩৩৪), অরুণা বিশ্বাস (৩১৫), আলীরাজ ৩৩৬, আফজাল শরীফ (২৯৩), আসিফ ইকবাল (৩১৪), আলেকজান্ডার বো (৩৩৭), জেসমিন ৩০৯, জয় চৌধুরী ৩০৩,, বাপ্পারাজ, মারুফ আকিব, রোজিনা ৩২০।
বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (এফডিসি) বৃষ্টি উপেক্ষা করে সকাল ৯টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। ভোটের আগ থেকে উত্তাপ থাকলেও শেষ পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। ভোট হয়েছে সুষ্ঠুভাবেই।

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> আলো ঝলমলে স্টেজ। চারপাশে সুন্দরীদের উপস্থিতি আরও মোহনীয় করে তুলেছে পরিবেশটাকে। তাদের দ্যুতিতে আলোকিত পুরো মঞ্চ। শুধু মঞ্চ না পুরো হলটাই আলোকিত। ঠিক এমন পরিবেশে নাম ঘোষণা হলো মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশের সেরা সুন্দরীর। তিনি হলেন শিরিন শিলা। তার সঙ্গে এ প্রতিযোগিতায় প্রথম রানারআপ হলেন আলিশা ইসলাম এবং দ্বিতীয় রানারআপ জেসিয়া ইসলাম।
বুধবার (২৩ অক্টোবর) রাতে চ্যাম্পিয়ন শিলার মাথায় ৭৫০টি ডায়মন্ড খচিত প্রায় ২০ লাখ টাকার শৈল্পিক মুকুট (ক্রাউন) পরিয়ে দেন সাবেক মিস ইউনিভার্স (১৯৯৪) ও বলিউড তারকা সুস্মিতা সেন। এই আয়োজনে অতিথি বিচারক ছিলেন তিনি। মূলত এ অনুষ্ঠানের জন্যই বুধবার দুপুরে সুস্মিতা ঢাকায় আসেন।
‘আমার আত্মবিশ্বাস, আমার সৌন্দর্য’-এ স্লোগানকে সামনে রেখে জমকালো আয়োজনের মধ্যদিয়ে দেশে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো ‘মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ’। প্রতিযোগিতার বিভিন্ন ধাপ পেরিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় বসুন্ধরার ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটিতে অনুষ্ঠিত হয় গ্র্যান্ড ফিনালে। চূড়ান্ত এ পর্বে সেরা ১০ থেকে মিস ইউনিভার্সের সেরার মুকুট জয় করেন শিরিন শিলা।

প্রথম ‘মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ’ হওয়ার অনুভূতি জানিয়ে শিরিন শিলা বলেন, ‘এটা আমার জন্য দারুণ আনন্দের মুহূর্ত। কতটা আনন্দের সেটা ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না। আমার জন্য দোয়া করবেন যেন বিদেশেও দেশের মুখ উজ্জ্বল করতে পারি। আজ থেকে আমিই বাংলাদেশ। আমার বাবা একজন সৈনিক। বাবার মতো আমিও দেশের জন্য কাজ করবো।’
মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশের প্রথমবারের এ প্রতিযোগিতাটি যৌথভাবে আয়োজন করে রিজ ইভেন্টস, অফ ট্র্যাক ও ট্রিলজি। এটি শুরু হয় গেল সেপ্টেম্বরে। কয়েক হাজার প্রতিযোগী থেকে শীর্ষ ১০ জনকে বাছাই করা হয়। বিজয়ীরা ছাড়াও সেরা ১০ থাকা প্রতিযোগীর মধ্যে ছিলেন মারিয়া মুমু, সানোবার তাইফা, স্মৃতি আক্তার, আফলা আমরার, তামান্না ইসরাত সোহানি, ঈরানা ইশরাত ও তৌসিবা ইসলাম আনিতা।
গ্র্যান্ড ফিনালের আসরে বিজয়ীর মাথায় মুকুট পরিয়ে দেন সুস্মিতা সেন। অনুষ্ঠানে মাঝে নেচে গেয়েও মুগ্ধ করেন তিনি। এর আগে মঞ্চে উঠে তিনি বলেন, ‘হ্যালো বাংলাদেশ। সুন্দর সব দেশেই সুন্দর। বাংলাদেশ এই সুন্দরকে নিয়ে এবার বিশ্বমঞ্চে প্রতিনিধিত্ব করছে, যিনি যাবেন তার জন্য শুভ কামনা।’
সুষ্মিতা সেনের সঙ্গে এদিন বিচারকের আসনে ছিলেন তাহসান খান, কানিজ আলমাস, টুটলি রহমান, রুবাবা দৌলা, ফারজানা চৌধুরী, ডিউক, ড. জারিন দেলোয়ার হোসাইন, আতাহার আলী খান ও স্টার ফারুক। আয়োজনের শুরু থেকেই বিচারকের দায়িত্বে ছিলেন তারা।
‘মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ’ আয়োজনের চেয়ারম্যান রিজওয়ান বিন ফারুক মঞ্চে উঠে বলেন, সবার প্রতি ভালোবাসা। আপনাদের সহযোগিতায় প্রথমবারের এ আয়োজন আমরা সফলভাবে শেষ করতে পারছি। এবার যিনি বিজয়ী হলেন তিনি বাংলাদেশের হয়ে মিস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সে লড়বেন। আশা করি আগামীতেও আপনারা আমাদের সহযোগিতা করবেন।

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> দেশ ভাগ হলেও আকাশের মতো গান, সিনেমা কখনও ভাগ হয়না। আলাদা দেশ হলেও আমরা দুই বাংলার মানুষ দিন শেষে একই নিয়মে ঘরে ফিরি। তাই আমি বলবো- এই দুই বাংলা এক হয়ে ছবি বানালে বাহুবলীর চেয়ে ভালো কিছু হবে। বলছিলেন কলকাতার জনপ্রিয় তারকা অভিনেতা প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জি।
জমকালো আয়োজনে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হলো ভারত-বাংলাদেশ ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডস (বিবিএফএ)-এর প্রথম আসর। এই আসরের মঞ্চে উপস্থিত হন দুই বাংলার একঝাঁক তারকা। সেই মঞ্চে উঠে কথাগুলো বলেন প্রসেনজিৎ।
এ সময় মঞ্চে ছিলেন বাংলাদেশের জয়া আহসান, মৌসুমী, ওমর সানী, নুসরাত ফারিয়া, পরীমনি, বিদ্যা সিনহা মিম এবং কলকাতার প্রসেনজিৎ, জিৎ, আবির চ্যাটার্জি, পরমব্রত, ঋতুপর্ণাসহ অনেকে।
বাংলার জনপ্রিয় অভিনয় শিল্পীদের উপস্থিতিতে সোমবার (২১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারের নবরাত্রী মিলনায়তনে যেন দুই বাংলার তারার মেলা বসে।
এ দিন সন্ধ্যা থেকেই মিলনায়তনে একে একে হাজির হন কিংবদন্তি সব অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। ফিল্ম ফেডারেশন অব ইন্ডিয়া ও বসুন্ধরা গ্রুপের উদ্যোগে এ অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়।

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> বলিউড তারকা সাইফ আলী খানের মেয়ে সারা আলী খানের নামের আগেই যুক্ত হয়ে গেছে বলিউড তারকা। এবার অপেক্ষা বড় ছেলে ইব্রাহিম আলী খানের। কিছুদিন আগেই হ্যালো ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদে দেখা গেছে সারা আলী খান আর ইব্রাহিমকে। শোনা যাচ্ছে, তিনি নাকি মা, বাবা আর বোনের মতোই পারিবারিক ঐতিহ্য মেনে পা রাখতে চান বলিউডে। তাই ই টাইমসকে দেওয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে ছেলের জন্য উপদেশ দিয়েছেন বাবা সাইফ আলী খান।
সারা আলী খান প্রথম ক্যামেরার সামনে এসেছিলেন বাবা সাইফ আলী খানের হাত ধরে। করণ জোহরের ‘কফি উইথ করণ’ শোতে। ‘কেদারনাথ’, ‘সিম্বা’ আর সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে সারা আলী খান খুবই অল্প সময়ের মধ্যেই এখন বলিউডের সবচেয়ে আলোচিত তারকাদের মধ্যে একজন। বলা হচ্ছে, একজন ‘আদর্শ বলিউড তারকা’ হতে যা যা প্রয়োজন, এর সবই আছে সারার ভেতর। পারিবারিক ঐতিহ্য, শিক্ষা, মেধা, জ্ঞান, বিনয়—এসবের সমন্বয়ে তাঁকে ভাবা হচ্ছে বলিউডের দাপুটে ভবিষ্যৎ।
অন্যদিকে ইব্রাহিম আলী খানের বলিউড অভিষেক বিষয়ে বাবা সাইফ আলী খান ই টাইমসকে বলেন, ‘ও (ইব্রাহিম) যদি সিনেমা করতে চায়, তবে আমার মনে হয়, সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা ও যোগ্যতা তার আছে। বলিউডে সে একেবারে নিজের যোগ্যতায় নিজের পরিচয় তৈরি করবে। আমার নামের কোনো প্রয়োজন নেই ওর।’
এরপরও সাইফের কাছে জানতে চাওয়া হয়, কোন ধরনের ছবি দিয়ে বলিউডের যাত্রা শুরু করলে ভালো হয়? উত্তরে সাইফ জানিয়েছেন, তিনি মনে করেন, খুব সিরিয়াস গোছের কিছু দিয়ে শুরু না করাই ভালো। একটু ‘হালকা’ ছবি দিয়ে শুরু করাই ভালো। উদারণ দিয়ে গিয়ে সাইফ ‘সালাম নামাস্তে’ ‘রেস’ ও ‘হাম তুম’ ছবির নাম উল্লেখ করেন। এরপর বলেন, ‘অবশ্য “ওমকারা” ও “পরিণীতা” জাতীয় ছবি দিয়েও বলিউডের ক্যারিয়ার শুরু করতে পারে ও। আমি নিশ্চিত নই। সেটা ওর সিদ্ধান্ত।’
অন্যদিকে সাইফ আলী খানকে দেখা যাবে ‘লাল কাপ্তান’ ছবিতে। গতকাল ভারতে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। আর সারা আলী খানকে দেখা যাবে গোবিন্দ ও কারিশমা কাপুর অভিনীত ১৯৯১ সালের জনপ্রিয় ছবি ‘কুলি নাম্বার ওয়ান’-এর রিমেকে। এখানে কারিশমা কাপুরের জায়গায় দেখা যাবে সারা আলী খানকে আর গোবিন্দর চরিত্রে অভিনয় করবেন বরুণ ধাওয়ান। ২০২০ সালের মে মাসে ছবিটি মুক্তি পাবে।
আবার ২০০৯ সালের সাইফ আলী খান ও দীপিকা পাড়ুকোনের সুপারডুপার হিট ছবি ‘লাভ আজকাল’র সিকুয়েলেও দেখা যাবে সারাকে। এখানে তাঁর বিপরীতে আছেন কার্তিক আরিয়ান।

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> কিংবদন্তী গায়ক আইয়ূব বাচ্চুর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী শুক্রবার (১৮ অক্টোবর)। ২০১৮ সালের ১৮ অক্টোবর এই দিনে প্রয়াত হন রুপালি গিটারের এ জাদুকর। প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে চট্টগ্রাম শহরের চৈতন্যগলি কবরস্থানে আইয়ুব বাচ্চুর কবর জিয়ারত করতে ছুটে গিয়েছেন এলআরবির সাবেক সদস্য সঙ্গীত তারকা এস আই টুটুল।
আইয়ূব বাচ্চুকে বস বলে সম্মোধন করতেন এ গায়ক। এখনও বস বলেই ডাকেন তাকে। বসের কবরের পাশে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন এস আই টুটুল। কান্না ভেজা চোখে বস যেনো ওপারে শান্তিতে থাকেন সে দোয়াই করেন।
কবর জিয়ারত করার পর এস আই টুটুল বলেন, বস চলে যাওয়ার পর প্রতিদিনই তাকে মিস করছি। তাই চলে যাওয়ার এই দিনে বসের কাছে ছুটে এসেছি। দীর্ঘ সময় বসের কাছে দাঁড়িয়ে থেকেছি।’

সেই ১৯৮৭ সাল থেকে আইয়ুব বাচ্চুর সঙ্গে এস আই টুটুলের যোগাযোগ। আইয়ূব বাচ্চুর জন্যই আজকের টুটুল হয়ে উঠার গল্প জানিয়ে তিনি বলেন, বস ছাড়া আমি শূন্য। আমার আজকের এই যা দেখছেন সবই বসের অবদান। দীর্ঘ একটা সময বস আমাকে তৈরি করেছেন। বসের সঙ্গে থেকে থেকে তার গানে সঙ্গে বাজাতাম। তার পেছনে পেছনে ঘুরে ঘুরে আজকের যতটুকু শিখেছি।
‘লাভেলো-কি আনন্দ উৎসব’ নামে একটি অনুষ্ঠানে গাইতে চট্টগ্রামে গিয়েছেন টুটুল। চট্টগ্রামে নাসিরাবাদ সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে অনুষ্ঠানটি। সেখানেও আইয়ূব বাচ্চুকে নিয়ে গানগুলোই গাইবেন বলে জানালেন তিনি। কিশোর-কিশোরীদের মাঝে আইয়ূব বাচ্চুকে তুল ধরার কথাই জানান টুটুল।
এ অনুষ্ঠান শেষে সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের জামালখানে আইয়ুব বাচ্চুকে স্মরণ করে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। সেখানেও হাজির হবেন এ গায়ক। ’

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> ‘রাবতা’, ‘দিলওয়ালে’, ‘বারেলি কি বরফি’ সিনেমাগুলোতে অভিনয় করে বলিউডে বেশ জনপ্রিয় অভিনেত্রী কৃতি শ্যানন। সম্প্রতি বলিউডে যৌন হেনস্তা নিয়ে মুখ খুলে আলোচনায় এলেন ‘হাউসফুল-৪’ খ্যাত এ অভিনেত্রী।
জিনিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বলিউডে কখনও এ ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হননি কৃতি শ্যানন। তবে বলিউডে যৌন হেনস্তা নিয়ে বরাবরই সরব তিনি।
এ প্রসঙ্গে কৃতি বলেন, বলিউডে যৌন হেনস্তার মতো ঘটনা ঘটলে তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ করা উচিত। এ ধরনের ঘটনা ঘটলে কখনো মুখ বন্ধ করে থাকা উচিত নয়। এক্ষেত্রে প্রতিবাদী হওয়ার কথা বলেছেন তিনি।
কৃতি আরও বলেন, কেউ এমন ঘটনার শিকার হলে, দোষীর উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করা উচিত। শুধু তাই নয়, যৌন হেনস্তার বিরুদ্ধে জোরদার আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিত বলেও মনে করেন এই নায়িকা, তা বলিউড হোক বা অন্য কোথাও।
সম্প্রতি ‘হ্যাশট্যাগ মিটু’ নিয়ে তোলপাড় হয় বলিউড। তনুশ্রী দত্ত থেকে বিদ্যা বালান কিংবা রাধিকা আপ্তে– বলিউডের একাধিক অভিনেত্রী বিভিন্ন সময় মুখ খোলেন যৌন হেনস্তার প্রতিবাদে।
Select Language