সোমবার, জুন ১, ২০২০ | ২১:৫১
১৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ | ৮ শাওয়াল, ১৪৪১
দেশ-দেশান্তর

অনলাইন ডেস্ক> যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের পেনসাকোলায় নৌবাহিনীর একটি ঘাঁটিতে বন্দুকধারীর হামলায় অন্তত তিনজন নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। পরে পাল্টা গুলিতে ওই বন্দুকধারীও নিহত হয়েছেন বলে এসকাম্বিয়া কাউন্টির শেরিফের দপ্তর জানিয়েছে।
শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) সকালে নাভাল এয়ার স্টেশন পেনসাকোলায় (এনএসএসপি) হামলার এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।
হামলার ঘটনায় এনএসএসপি’র উভয় পাশের গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় শেরিফের দুই ডেপুটি আহত হয়েছেন। তবে দুজনই আশঙ্কামুক্ত বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। গোলাগুলিতে আহত আটজনকে ব্যাপটিস্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে ওই হাসপাতালের মুখপাত্র জানিয়েছেন।
এক টুইটার বার্তায় ফ্লোরিডার গভর্নর রন ডিসান্টিস বলেন, বিষয়টি গভর্নর অফিস থেকে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এছাড়া প্রয়োজনে ঘটনাস্থলে নিরাপত্তা বাহিনীর আরও সদস্য পাঠানো হবে।
শেরিফ ডেভিড মরগান এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, তার একজন ডেপুটি ঘাঁটির একটি শ্রেণিকক্ষে ওই হামলাকারীকে গুলি করে মেরেছেন। হামলাকারীর নাম-পরিচয় সম্পর্কে কিছু বলতে রাজি হননি তিনি।
মার্কিন নৌবাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তদন্ত শুরু হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তির নাম প্রকাশ করা হবে না। তবে ওই বন্দুকধারীকে আটক করা হয়েছে কি না, তা উল্লেখ করা হয়নি।
মার্কিন ওই নৌঘাঁটিতে ১৬ হাজারেরও বেশি সামরিক ও প্রায় সাড়ে ৭ হাজার বেসামরিক সদস্য আছেন।
এরআগে মাত্র দুদিন আগে হাওয়াইয়ের পার্ল হারবার সামরিক ঘাঁটিতে মার্কিন নৌবাহিনীর এক নাবিকের গুলিতে দুই বেসামরিক নিহত ও একজন আহত হন।

অনলাইন ডেস্ক> ইতালিতে ২০১৬ সালে এক ভয়ংকর ভূমিকম্প আঘাত হেনেছিল, যাতে প্রাণ হারিয়েছিল কয়েক শ মানুষ। সেই ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোয় কী ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে, তা নিয়ে পার্লামেন্টে বিতর্ক চলছিল। ঠিক এমন সময় প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে বসলেন এক আইনপ্রণেতা।
অবিশ্বাস্য হলেও এ ঘটনা ইতালির পার্লামেন্টে। গত বৃহস্পতিবার পার্লামেন্টে ওই বিতর্ক দেখতে এসেছিলেন কট্টর লোকরঞ্জনবাদী দল লিগ পার্টির নেতা ও আইনপ্রণেতা (এমপি) ফ্লাভিও ডি মুরোর প্রেমিকা এলিসা দে লিও।
এ বিতর্কের ফাঁকে স্পিকারের কাছ থেকে কথা বলার অনুমতি নেন ফ্লাভিও। তিনি বলেন, ‘আমরা যাঁরা এই কক্ষের সদস্য, জাতীয় জরুরি ইস্যু নিয়ে তাঁরা সব সময় ব্যস্ত থাকি। প্রতিদিন আমরা রাজনীতি নিয়ে বিতর্ক করি। কিন্তু যাঁরা আমাদের ভালোবাসেন, এসব করতে গিয়ে তাঁদের অবহেলা করি আমরা।’ এরপর তিনি একটি আংটি বের করে তাঁর প্রেমিকার দিকে ধরেন। তিনি বলেন, ‘আজকের দিনটা আমার জন্য বিশেষ। এলিসা, তুমি কি আমাকে বিয়ে করবে?’
এলিসা তখন হ্যাঁ কিংবা না কিছুই বলেননি। ফলে উদ্বেগ ছিল। তবে পরে ফ্লাভিও গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এলিসা তাঁর প্রস্তাব গ্রহণ করেছেন। তিনি বিয়েতে রাজি হয়েছেন। ফ্লাভিও বলেন, ‘আমরা বিয়ে করতে যাচ্ছি। তবে তারিখ এখনো ঠিক হয়নি।’

অনলাইন ডেস্ক> প্রতিরক্ষা চুক্তি ‘আকসা’ ও ‘জিসোমিয়া’ সইয়ের জন্য বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র আলোচনা চালিয়ে যেতে রাজি হয়েছে। ২০১৮ সাল থেকে এ নিয়ে দুই দেশ আলোচনার টেবিলে আছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কূটনৈতিক সূত্রগুলো সংবাদমাধ্যমে এসব তথ্য জানিয়েছে।
দুই দিনের সফরে মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) সকালে প্রথমবারের মতো ঢাকায় এসেছেন এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় নিরাপত্তা বিষয়ক সহকারী মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী র‍্যান্ডল শ্রাইভার। তিনি প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিক ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভীর সঙ্গে আলোচনা করেন। তাঁদের এই আলোচনায় বিষয়টি গুরুত্ব পায়।
মঙ্গলবার দিনের প্রথম ভাগে প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা বিষয়ক সরকারের একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে বৈঠক করেন র‍্যান্ডল শ্রাইভার। এরপর বিকেলে তিনি প্রথমে তারিক আহমেদ সিদ্দিক পরে গওহর রিজভীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।
প্রধানমন্ত্রীর দুই উপদেষ্টার সঙ্গে আলোচনার বিষয়ে জানতে চাইলে কূটনৈতিক সূত্রগুলো এই প্রতিবেদককে জানায়, প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা খাতে দুই দেশের মধ্যে এখন যে সহযোগিতা আছে, তা বাড়ানোর ওপর জোর দিয়েছে দুই পক্ষই। অবশ্য প্রতিরক্ষা খাতে সহযোগিতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তরের জ্যেষ্ঠ ওই কর্মকর্তা দুই দেশের সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর মধ্যে সরাসরি সহযোগিতা ওপর গুরুত্ব দিয়েছে। প্রতিরক্ষা খাতে কর্মদক্ষতা বাড়াতে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন বিশেষায়িত প্রশিক্ষণে বাংলাদেশের কর্মকর্তাদের বেশি সংখ্যায় নেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে ঢাকা।
জানা গেছে, দুই পক্ষের আলোচনায় অস্ত্র বিষয়ক কেনাকাটা বিষয়ক চুক্তি-আকসা (একুইজেশন অ্যান্ড ক্রস-সার্ভিসিং অ্যাগ্রিমেন্ট) এবং অস্ত্র বিষয়ক গোপন তথ্য বিনিময় ও সুরক্ষার চুক্তি-জিসোমিয়ার (জেনারেল সিকিউরিটি অব মিলিটারি ইনফরমেশন অ্যাগ্রিমেন্ট) প্রসঙ্গটি এসেছে। যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে বাংলাদেশ উন্নত প্রযুক্তির হেলিকপ্টার ও রাডার কেনার আগ্রহ দেখিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের আইন অনুযায়ী কোনো দেশের কাছে উন্নত প্রযুক্তির সমরাস্ত্র বিক্রির আগে সেই দেশের সঙ্গে জিসোমিয়া সই করার বাধ্যবাধকতার প্রসঙ্গটি উল্লেখ করেন র‍্যান্ডল শ্রাইভার । এই প্রেক্ষাপটে দুই দেশ চুক্তি দুটি সইয়ের জন্য আলোচনা চালিয়ে যেতে রাজি হয়েছে।
কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, সামুদ্রিক নিরাপত্তার বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে সহকারী মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সাগরের বুকে বুকে নতুন চ্যালেঞ্জের প্রসঙ্গ টেনেছেন। এই চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলায় দুই দেশের এক সঙ্গে কাজের সুযোগের কথাও উল্লেখ করেন তিনি। সন্ত্রাসবাদ দমনে সহযোগিতায় সাফল্যের প্রসঙ্গ টেনে দুই পক্ষ সন্তোষ প্রকাশ করেছে। র‍্যান্ডল শ্রাইভার সন্ত্রাসবাদ দমনে বাংলাদেশের সামর্থ্য বাড়াতে যুক্তরাষ্ট্র আগ্রহী বলেও জানিয়েছেন।
বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার প্রেক্ষাপটে রোহিঙ্গা সমস্যার প্রসঙ্গটি আলোচনায় এসেছে। সহকারী মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী র‍্যান্ডল শ্রাইভার প্রধানমন্ত্রীর দুই উপদেষ্টাকে জানিয়েছেন, এ সমস্যার একটি স্থায়ী সমাধানের জন্য যুক্তরাষ্ট্র দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট আসিয়ানের সদস্যদের ভূমিকা রাখার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাবে।

অনলাইন ডেস্ক> অনেকেরই ঘুম থেকে উঠে চা বা কফি খাওয়ার অভ্যাস আছে। চা বা কফি না খেলে তাদের দিনই যেন শুরু হয় না। তাই বলে কোনো প্রাণীর যদি এমন অভ্যাস হয় তাহলে বিষয়টা কেমন হয়? অবিশ্বাস্য শোনালেও যুক্তরাজ্যে এমনই এক ঘোড়ার খোঁজ পাওয়া গেছে যার দিন শুরু হয় এক কাপ চা দিয়ে।
ইংল্যাণ্ডের লিভারপুলের অ্যালেরটন আস্তাবলে থাকা ২০ বছর বয়সী ওই ঘোড়াটি ১৫ বছর ধরে মিরসেইসাইডের ঘোড়সওয়ার পুলিশ বিভাগে কাজ করছে। জেক নামের ওই ঘোড়াটি তার দীর্ঘ ক্যারিয়ারে চায়ে এতটাই অভ্যস্ত হয়ে গেছে যে সকালে চা না দিলে সে কাজ করতে অস্বীকৃতি জানায়।
জানা গেছে, প্রথম প্রথম জেক তার সওয়ারকারীর কাপ থেকে চুরি করে চা খেত। পরে ধীরে ধীরে এটি তার অভ্যাসে পরিণত হয়। মিরসেইসাইড পুলিশ বিভাগও জেকের জন্য এখন আলাদাভাবে চা বরাদ্দ করেছে।
পুলিশ কর্মীরা জানিয়েছে, প্রতিদিন সকালে বড় কাপে করে আলাদাভাবে চা দিতে হয় জেককে। আরাম করে সেই চা পানের পরই সে কাজে যেতে রাজি হয়। মিরসেইসাইড পুলিশ টুইটারে জেকের চা খাওয়া নিয়ে একটা ভিডিও প্রকাশ করেছে। সেখানে তারা লিখেছে, এক কাপ গরম চা না পেলে জেক বিছানা থেকে উঠতেই চায় না। একবার চা পান করার পরই সে দিনের কাজের জন্য প্রস্তুত হয়ে যায়।
পুলিশ কর্তৃপক্ষ আরও জানিয়েছে, ঘন দুধের সঙ্গে দুই চামচ চিনি মেশানো চা জেকের দারুণ পছন্দের। সূত্র : এনডিটিভি

অনলাইন ডেস্ক> ইরাকে বিক্ষোভকারীদের ওপর নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ১৩ সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে। বুধবার রাতে নাজাফে ইরানি দূতাবাসে অগ্নিসংযোগের পর নাসিরিয়ায় এ গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে কমপক্ষে ১০০ জন। নাসিরিয়ায় নতুন করে বিক্ষোভ শুরু হতেই এ গুলিবর্ষণ ও হতাহতের ঘটনা ঘটে। এদিকে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ইরাক শহর নাজাফ ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় কারফিউ জারি করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) সামরিক বাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়, ইরাকের প্রধানমন্ত্রী এবং সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান আদেল আবদেল মাহদির নির্দেশে কয়েক কমান্ডারকে এই মিশনের দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে।
বুধবার রাতে অগ্নিসংযোগের পর নিরাপত্তা সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে এর দায়িত্ব নিয়ে নেন। বিক্ষোভকারীরা ক’দিন ধরে যে জায়গাটা নিজেদের কবজায় রেখেছিল, তাদের সরাতে গিয়ে সংঘর্ষের সময় গুলি চালানো হয়। এতে নিহতের ঘটনাটি ঘটে।
নাসিরিয়া এখন নিরাপত্তা বাহিনীর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে জানা গেছে। পুলিশ রাস্তা ও অলিগলিতে অবস্থান নিয়েছে।
ইরাকের সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীরা মূলত রাজনৈতিক নেতাদের নির্দেশেই বিক্ষোভ চালিয়ে আসছে। গত অক্টোবরে শুরু হওয়া এই বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে প্রাণ হারিয়েছে ৩৬০ জনেরও বেশি। আহত হয়েছে প্রায় দেড় হাজার।
বিক্ষোভকারীদের মধ্যে বেশিরভাগ আবার ইরাকের ওপর ইরানি প্রভাব বিস্তারেরও বিরোধিতা করে আসছে। ইরানের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে ইরাকিরা হস্তক্ষেপ করে আসছে বলে তাদের অভিযোগ। ২০০৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের হাতে সাদ্দাম হোসেনের পতন হওয়ার পর থেকে দেশটিতে ইরানবিরোধী মনোভাব বাড়তে শুরু করেছে।
চলতি মাসে কারবালায়ও ইরানি দূতাবাসে হামলা চালানো হয়। সেখানে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে চারজন নিহত হয়েছিল।

অনলাইন ডেস্ক> মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সময়টা মোটেই ভালো যাচ্ছে না, তা বলাই যায়। তবে সম্প্রতি টুইটে তাঁর শেয়ার করা ছবি দেখলে তা মনে হবে না।
নিজের একটি ছবি পোস্ট করেছেন ট্রাম্প। আর টুইটারের সেই ছবি মনে করিয়ে দিয়েছে সিলভারস্টার স্ট্যালনের ‘রকি থ্রি’ ছবির কথা। ছবিতে দেখা যায় ট্রাম্পের কঠিন পেশি ও পেটানো চেহারা। আর দাঁড়ানোর সেই স্টাইল। তবে শুধু মুখের দিকে তাকালেই বোঝা যাবে পার্থক্যটা। কাল্পনিক চরিত্র বক্সার রকি বালবোয়ার বেশে ট্রাম্পের নতুন ছবি টুইটারে ঝড় তুলেছে।

‘রকি থ্রি’ ছবিতে বক্সারের বেশে সিলভারস্টার স্ট্যালনের মতো ছবি ডোনাল্ড ট্রাম্প পোস্ট করেছেন। ছবিটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আলোচনা চলছে। ছবি: ট্রাম্পের টুইট থেকে নেওয়া

নিজের এমন বিকৃত ছবি নিজেই পোস্ট করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। আর টুইটারকে মনে করিয়ে দিয়েছেন সিলভারস্টার স্ট্যালনের ‘রকি থ্রি’ ছবির কথা।
রকি থ্রি’ ছবিতে বক্সারের বেশে সিলভারস্টার স্ট্যালন জিতে নিয়েছিলেন লাখো দর্শকের মন। আর সেই ছবির প্রধান চরিত্রকে নিয়ে ট্রাম্প আচমকা এমন ছবি কেন পোস্ট করলেন—এখন সেই আলোচনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমজুড়ে।

অনলাইন ডেস্ক> প্রযুক্তি পণ্য ভিআর হেডসেট বা ভার্চ্যুয়াল রিয়েলিটি হেডসেট। এ প্রযুক্তি হলো কম্পিউটারনিয়ন্ত্রিত এমন একটি ব্যবস্থা, যেখানে মডেলিং ও অনুকরণবিদ্যা প্রয়োগের মাধ্যমে মানুষ কৃত্রিম ত্রিমাত্রিক ইন্দ্রিয়গ্রাহ্য পরিবেশের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করতে পারে। ভার্চ্যুয়াল রিয়েলিটির এ পরিবেশ হুবহু বাস্তব পৃথিবীর মতো হতে পারে।
এ প্রযুক্তি এখন ব্যবহার করা হচ্ছে গরুর ক্ষেত্রে। গরুর উদ্বেগ দূর করা এবং মানসিক অবস্থার উন্নতির জন্য এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, যাতে গাভির দুধ দেওয়ার পরিমাণ বাড়ে। রাশিয়ায় গরুতে এ ভিআর ব্যবহার করে গরুকে দেখা গেছে, একটি উষ্ণ চারণভূমিতে ঘুরে বেড়াচ্ছে গরুটি। ফলে গরুর উদ্বেগ দূর হচ্ছে এবং মানসিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে।
রাশিয়ার কৃষি মন্ত্রণালয় এ প্রকল্প গ্রহণ করেছে। রাজধানী মস্কোর কাছাকাছি একটি বড় ডেইরি ফার্মে এ পাইলট প্রকল্পের কাজ চলছে। গবেষকেরা বলছেন, সুখী গরু বেশি দুধ দেয়। আর মন্ত্রণালয়টি বলেছে, একটি শান্ত পরিবেশে গাভিগুলোর দুধ দেওয়ার পরিমাণ যেমন বাড়ে, তেমনি দুধের গুণগত মানও উন্নত হয়।
ধারণা করা হচ্ছে, গবেষণা করে গরুর জন্য ভিআর তৈরি করা বিশ্বে এটাই প্রথম। রাশিয়ার রাসমোলোকো ফার্ম দেশটির কৃষি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে ওই গবেষণায় যুক্ত রয়েছে। তারা বিবৃতিতে বলেছে, ভিআর ব্যবহার করার মধ্য দিয়ে কম্পিউটারনিয়ন্ত্রিত গ্রীষ্মকালীন গোচারণভূমি তৈরি করা হয়েছে। গবেষকেরা বলছেন, এতে লাল বর্ণচ্ছটা ব্যবহার করা হচ্ছে। কারণ, বর্ণচ্ছটার মধ্য থেকে সবুজ কিংবা নীল রঙের থেকে গরু লাল রং বেশি পছন্দ করে।

অনলাইন ডেস্ক> মালিতে জঙ্গিবিরোধী অভিযান পরিচালনার সময় দুটি হেলিকপ্টারের মধ্যে সংঘর্ষে ১৩ জন ফরাসি সেনা নিহত হয়েছেন। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট কার্যালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয় বলে বিবিসির খবরে বলা হয়।
সোমবার (২৫ নভেম্বর) বুরকিনা ফাসো ও নাইজার সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে।
১৯৮০ দশকের পর এটা ফ্রান্সের সেনাবাহিনীতে বড় ধরনের প্রাণহানির ঘটনা।
এ ঘটনায় দেশটির প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাখোঁ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। ইতিমধ্যে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, ‘এই ১৩ বীর সেনার একটাই লক্ষ্য ছিল, আমাদের রক্ষা করা। তাঁদের স্বজন ও সহকর্মীদের প্রতি আমি মাথা নত করছি।’
ইসলামপন্থী জঙ্গিরা মালির উত্তরাঞ্চলের বেশির ভাগ এলাকার নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর জঙ্গি দমনে ২০১৩ সালে দেশটিতে সেনা মোতায়েন করে ফ্রান্স। এখন পর্যন্ত মালিতে দায়িত্বরত অবস্থায় ফ্রান্সের ৩৮ সেনা কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন।
বর্তমানে ওই অঞ্চল মালির সেনাবাহিনীর নিয়ন্ত্রণে থাকলেও জঙ্গি হামলা অব্যাহত থাকায় সেখানে নিরাপত্তাহীনতা বিরাজ করছে। ওই অঞ্চলের অন্যান্য দেশেও দিন দিন সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ছে।
ইসলামি জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে মালি, মৌরিতানিয়া, নাইজার, বুরকিনা ফাসো ও চাদে ফ্রান্সের সাড়ে চার হাজার সেনাসদস্য মোতায়েন রয়েছেন।

অনলাইন ডেস্ক> যেন এক সিনেমার ভয়ঙ্কর কোনও দৃশ্য! উড়াল সেতুর ওপর থেকে উড়ে সড়কে এসে লেপ্টে গেল এক প্রাইভেটকার। তারপর যা হবার তাই! চাপা পড়ে নিভে গেল এক প্রাণ। এরপর জট বেধে গেল ওই এলাকায়।
ঘটনাস্থলের ভিডিও ফুটেজ দেখলে যেটিকে মনে হবে সিনেমা; তা আসলে কোনও সিনেমার দৃশ্য নয়। এমন ভয়াবহ কাণ্ড ঘটেছে ভারতের তেলেঙ্গানা রাজ্যে হায়দারাবাদের এক সড়কে।
এনডিটিভি বলছে, শনিবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে সদ্য উদ্বোধন করা ওই উড়াল সেতুর পাশে মেয়েসহ অটোরিকশার জন্য দাঁড়িয়ে ছিলেন এক নারী। এ সময় উচ্চগতির একটি প্রাইভেটকার উড়াল সেতু থেকে নিচে পড়ে যায়। ওই কারের নিচে চাপা পড়ে যান দাঁড়িয়ে থাকা নারী।
এই দুর্ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। দুর্ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে থাকা দুটি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
পুলিশ জানিয়েছে, দুর্ঘটনাকবলিত প্রাইভেটকারের ভেতরে তিন আরোহী ছিলেন; চালকের অবস্থা গুরুতর। উড়াল সেতুটির ওপরে গতিসীমা ৪০ কিলোমিটার থাকলেও গাড়িটির গতি ছিল ১০৪ কিলোমিটার।

অনলাইন ডেস্ক> যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্রেটিক সদস্যদের অভিশংসন তদন্তের শুনানি নিয়ে হতাশায় ভুগছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।
এক সপ্তাহ ধরে তার বিরুদ্ধে বেরিয়ে আসছে নাটকীয় সব ঘটনা। এর সঙ্গে জড়িত যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান এবং সাবেক প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও কূটনীতিকদের সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে। এসব দেখে হতাশ ও ক্ষিপ্ত ট্রাম্প।
শুক্রবার (২২ নভেম্বর) এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, অভিশংসন তদন্তকে স্বাগত জানালে ক্ষমতার অপব্যবহারের যে অভিযোগ তার বিরোধী শিবিরের ‘ভ্রান্ত’ ও ‘দুর্নীতিগ্রস্ত’ সদস্যরা এনেছেন, তাতে তিনি পাত্তা দিচ্ছেন না।
ফক্স নিউজের সঙ্গে টেলিফোন সাক্ষাৎকারে এফবিআই, তার রাজনৈতিক উপদেষ্টা এবং অভিশংসন তদন্তের উদ্যোক্তা নেতাদের বিরুদ্ধে গভীর ক্ষোভ ও উষ্ফ্মা প্রকাশ করেছেন তিনি। ট্রাম্প বলেন, তারা অসুস্থ। তাদের মনমানসিকতা নোংরা। ফপ অ্যান্ড ফ্রেন্ডসের দীর্ঘ ৫৩ মিনিটের সকালের অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, আমি তাদের বিচার চাই।
রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ জো বাইডেন ও তার ছেলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে তদন্ত করতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের ওপর চাপ সৃষ্টির অভিযোগে ডেমোক্র্যাটরা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন তদন্ত চালাচ্ছেন। এই প্রক্রিয়ায় ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি এখন রীতিমতো হুমকির মুখে। তদন্তের অংশ হিসেবে শুনানি কার্যক্রমে অংশ নেন সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তারা। তারা শপথ করে বলেছেন, ইউক্রেনকে সামরিক সহায়তা প্রদানসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়েছেন ট্রাম্প। শর্ত একটাই- তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ আনতে হবে ইউক্রেনকে। তবে ইউক্রেন তার প্রস্তাবে রাজি হয়নি।
তবে এসব সাক্ষ্য-প্রমাণেও রিপাবলিকানরা ট্রাম্পের ব্যাপারে নীরব। আর তাতে উৎসাহিত ট্রাম্প। সব সাক্ষ্যপ্রমাণকে নেহাত ‘বাজে’ বলে মন্তব্য করে ট্রাম্প বলেছেন, আমি তাদের বিচার চাই।
Select Language