রবিবার, জুন ৭, ২০২০ | ০২:৪২
২৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ | ১৩ শাওয়াল, ১৪৪১
জাতীয়

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ

২৪ নি উজভিশন.কম>
এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় উত্তরপত্র যেন সমানভাবে মূল্যায়ন করা হয়, তার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এর ব্যাখ্যা দিয়ে মন্ত্রী বলেন, একই ধরনের উত্তরপত্রে সব শিক্ষার্থী যেন সমানভাবে নম্বর পেতে পারে, সেই ব্যবস্থা করা হচ্ছে। দুই হাজার প্রধান পরীক্ষককে এ ব্যাপারে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। তাঁরা বাকি পরীক্ষকদের এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলবেন।
বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর ধানমন্ডি গভ ল্যাবরেটরি স্কুলকেন্দ্রে পরীক্ষা দেখতে গিয়ে সাংবাদিকদের মন্ত্রী এ কথা জানান। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট ইউনিটের সহায়তায় এই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। একই ধরনের উত্তরপত্রে একেক পরীক্ষক একেক রকম নম্বর দেন। এটি যাতে না হয়, সে জন্যই এমন ব্যবস্থা।
নুরুল ইসলাম নাহিদ আরও বলেন, ছেলেমেয়েরা আনন্দের সঙ্গে পরীক্ষা দিচ্ছে। কোনো সমস্যা নেই।
মন্ত্রী বলেন, আগে তাঁরা দলবল নিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢুকতেন। কিন্তু পরীক্ষার্থীদের অসুবিধা এড়াতে গত তিন বছর ধরে সংশ্লিষ্ট দু-একজনকে নিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে গিয়েছেন। এবারও তাই করেছেন।
মন্ত্রীর সঙ্গে এ সময় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব সোহরাব হোসেন উপস্থিত ছিলেন।
সকাল ১০টার দিকে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়। পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ১৭ লাখ ৮৬ হাজার ৬১৩ জন শিক্ষার্থী। গতবারের চেয়ে এবার পরীক্ষার্থী বেড়েছে ১ লাখ ৩৫ হাজার ৯০ জন।

এবার আটটি সাধারণ বোর্ডের অধীন এসএসসি পরীক্ষার্থী ১৪ লাখ ২৫ হাজার ৯০০ জন। মাদ্রাসা বোর্ডের দাখিলে পরীক্ষার্থী ২ লাখ ৫৬ হাজার ৫০১ জন ও কারিগরি বোর্ডের অধীন এসএসসি (ভকেশনাল) পরীক্ষার্থী ১ লাখ ৪ হাজার ২১২ জন। প্রথম দিনে আজ এসএসসিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষা।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য বলছে, ১০ বোর্ডের অধীনে দুই বছর আগে ১৮ লাখ ৯৩ হাজার ৯৫৩ জন শিক্ষার্থী নিবন্ধন (রেজিস্ট্রেশন) করলেও নিয়মিত এসব শিক্ষার্থীর মধ্যে পরীক্ষা দিচ্ছে ১৬ লাখ ৭ হাজার ১২৪ জন। অর্থাৎ নিবন্ধিত ২ লাখ ৮৬ হাজার ৮২৯ জন নিয়মিত শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিচ্ছে না। এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে হলে দশম শ্রেণির নির্বাচনী (টেস্ট) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হয়।

এবার প্রশ্নপত্রে এমসি কিউ অংশের ১০ নম্বর কমিয়ে সৃজনশীলে ১০ নম্বর বাড়ানো হয়েছে। অর্থাৎ, ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হলে সেখানে এমসি কিউ অংশের নম্বর হবে ৩০ এবং সৃজনশীল অংশের নম্বর হবে ৭০।

সময়সূচি অনুযায়ী তত্ত্বীয় পরীক্ষা আগামী ২ মার্চ শেষ হবে এবং ব্যবহারিক পরীক্ষা ৪ মার্চ শুরু হয়ে ১১ মার্চ শেষ হবে।

২৪ নিউজভিশন.কম>
বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) শুরু হচ্ছে ২০১৭ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষা। এবার এসব পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ১৭ লাখ ৮৬ হাজার ৬১৩ জন। গতবারের চেয়ে এবার পরীক্ষার্থী বেড়েছে ১ লাখ ৩৫ হাজার ৯০ জন।
এবার আটটি সাধারণ বোর্ডের অধীন এসএসসি পরীক্ষার্থী ১৪ লাখ ২৫ হাজার ৯০০ জন। মাদ্রাসা বোর্ডের দাখিলে পরীক্ষার্থী ২ লাখ ৫৬ হাজার ৫০১ জন ও কারিগরি বোর্ডের অধীন এসএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষার্থী ১ লাখ ৪ হাজার ২১২ জন। প্রথম দিনে আজ এসএসসিতে অনুষ্ঠিত হবে বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষা।
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য বলছে, ১০ বোর্ডের অধীনে দুই বছর আগে ১৮ লাখ ৯৩ হাজার ৯৫৩ জন শিক্ষার্থী নিবন্ধন (রেজিস্ট্রেশন) করলেও নিয়মিত এসব শিক্ষার্থীর মধ্যে পরীক্ষা দিচ্ছে ১৬ লাখ ৭ হাজার ১২৪ জন। অর্থাৎ নিবন্ধিত ২ লাখ ৮৬ হাজার ৮২৯ জন নিয়মিত শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিচ্ছে না। উল্লেখ্য, এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে হলে দশম শ্রেণির নির্বাচনী (টেস্ট) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হয়।
এবার প্রশ্নপত্রে এমসিকিউ অংশের ১০ নম্বর কমিয়ে সৃজনশীলে ১০ নম্বর বাড়ানো হয়েছে। অর্থাৎ ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হলে সেখানে এমসিকিউ অংশের নম্বর হবে ৩০ এবং সৃজনশীল অংশের নম্বর হবে ৭০।
সময়সূচি অনুযায়ী তত্ত্বীয় পরীক্ষা আগামী ২ মার্চ শেষ হবে এবং ব্যবহারিক পরীক্ষা ৪ মার্চ শুরু হয়ে ১১ মার্চ শেষ হবে।
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ পরীক্ষা দেখতে আজ সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি হাইস্কুল কেন্দ্রে যাবেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্র বলেছে, মন্ত্রী এ সময় কেবল সংশ্লিষ্ট দুই-একজন কর্মকর্তাকে সঙ্গে নিয়ে কেন্দ্রে যাবেন।

২৪ নিউজভিশন.কম>
অর্থসচিবসহ ১২টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিব পদে রদবদল ও নতুন নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। বুধবার (১ ফেব্রুয়ারি) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পৃথক প্রজ্ঞাপনে এসব রদবদল ও নিয়োগ দিয়েছে।

এর মধ্যে বর্তমান ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সচিব ফয়জুর রহমান চৌধুরীকে সরিয়ে দিয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব করা হয়েছে। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অধীন তিনটি কোম্পানিতে অনিয়ম নিয়ে তাঁর নাম আলোচনায় আসে। এ নিয়ে সম্প্রতি গণমাধ্যমেও সংবাদ হয়েছে। তিনি ওই তিনটি কোম্পানির চেয়ারম্যানের দায়িত্বে রয়েছেন।
অর্থসচিব হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন। তিনি মাহবুব আহমেদের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন। আর ভারপ্রাপ্ত বাণিজ্যসচিব হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব শুভাশীস বোস।
সংস্কৃতিসচিব বেগম আকতারী মমতাজকে সরকারি কর্মকমিশনের (পিএসসি) সচিব করা হয়েছে। আর পদোন্নতি পেয়ে তাঁর স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ইব্রাহীম হোসেন খান।
নতুন হওয়া দুটি বিভাগের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব হয়েছেন বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহমেদ এবং জননিরাপত্তা বিভাগের দায়িত্ব পেয়েছেন এত দিন ধরে স্বরাষ্ট্রসচিবের দায়িত্বে থাকা কামাল উদ্দিন আহমেদ। বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিবের দায়িত্ব পেয়েছেন সমবায় অধিদপ্তরের নিবন্ধক মফিজুল ইসলাম। তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগের সচিব শ্যামসুন্দর সিকদারকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সচিব করা হয়েছে। পদোন্নতি দিয়ে ভারপ্রাপ্ত সচিব করে তাঁর স্থলাভিষিক্ত করা হয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরীকে। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব মাকসুদুল হাসান খানকে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সচিব করা হয়েছে।
এ ছাড়া এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর মহাপরিচালক আসাদুল ইসলামকে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব করা হয়েছে। অন্যদিকে বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক বেগম শিরীন আখতারকে একই পদে রেখে ভারপ্রাপ্ত সচিবের মর্যাদা দেওয়া হয়েছে।

২৪ নিউজভিশন.কম>
মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত আনুমানিক সাড়ে তিন লাখ আনডকুমেনটেড বাংলাদেশি কর্মী সে দেশে কাজের সুযোগ পাবেন। বুধবার (১ ফেব্রুয়ারি) সংসদে সরকারি দলের কামাল আহমেদ মজুমদারের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

সরকারি দলের কামাল আহমেদ মজুমদারের প্রশ্নের জবাবে গত ১৫ জানুয়ারি মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে টেলিফোন আলাপের প্রসঙ্গ টেনে শেখ হাসিনা বলেন, ওই আলাপের ফলে মালয়েশিয়ার সরকার আনডকুমেনটেড (তালিকাবিহীন) বিদেশি কর্মীদের জন্য সাময়িক ওয়ার্ক পাস ইস্যুর ঘোষণা দিয়েছে। ফলে মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত আনুমানিক সাড়ে তিন লাখ আনডকুমেনটেড বাংলাদেশি কর্মী সে দেশে কাজের সুযোগ পাবেন। অন্যথায় তাঁদের দেশে ফিরে আসতে হতো।

মীর মোস্তাক আহমেদের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মনজুরুল ইসলাম লিটনের হত্যায় দায়ের করা মামলায় জড়িত সন্দেহে এ পর্যন্ত ২২ জনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে পাওয়া আলামত ব্যালেস্টিক ও ডিএনএ পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

শফিকুল ইসলামের প্রশ্নের জবাবে সরকারপ্রধান বলেন, সব ধরনের নাশকতা ও সহিংসতার সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে ও তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণে পুলিশ ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী পারস্পরিক সমন্বয়ের মাধ্যমে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সরকারের গৃহীত ব্যবস্থার ফলে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তৎপর থাকার ফলে দেশে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ও জঙ্গি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়েছে। এর ফলে দেশের সার্বিক উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে। বৈদেশিক বিনিয়োগ বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং দেশের অর্থনৈতিক ভিত্তি দৃঢ়তর হচ্ছে।

২৪ নিউজভিশন.কম>
বাংলাদেশে বর্তমানে ভোটার সংখ্যা ১০ কোটি ১৭ লাখ ৮১ হাজার ৫০ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৫ কোটি ১৪ লাখ ৭৩ হাজার ৫০২ জন ও নারী ৫ কোটি ৩ লাখ ৭ হাজার ৫৪৮ জন। ভোটার তালিকা হালনাগাদ শেষে নির্বাচন কমিশন থেকে বুধবার (১ ফেব্রুয়ারি) এ তথ্য সাংবাদিকদের জানানো হয়।
হালানাগাদ শেষে ১২ লাখ ১৬ হাজার ৯৬৯ নতুন ভোটার অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৭ লাখ ১৫ হাজার ৪০৮ জন ও নারী ৫ লাখ ১ হাজার ৫৬১ জন। এর আগে কমিশন গত ১ জানুয়ারি হালনাগাদ করা খসড়া ভোটার প্রকাশ করে। এরপর দাবি-আপত্তি নিষ্পত্তি শেষে ৩১ জানুয়ারি চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করে। যাচাই বাছাইয়ে প্রায় দেড় লাখের মত ভোটারের নাম তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়।

২৪ নিউজভিশন.কম>
নাশকতা ও রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ করা ১০টি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পক্ষে সময় চেয়ে করা আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। ২৭ ফেব্রুয়ারি এসব মামলায় তিনি হাজির না হলে তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হবে। বুধবার (১ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মো. কামরুল হোসেন মোল্লা এ আদেশ দেন।

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি তাপস কুমার পাল সাংবাদিকদের বলেন, আজ নাশকতার নয়টি ও রাষ্ট্রদ্রোহের অপর একটি মামলায় খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের উপস্থিতিতে আজ অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন ধার্য ছিল। খালেদা জিয়া অসুস্থ উল্লেখ করে তাঁর আইনজীবীরা সময় চেয়ে আবেদন করেন। আদালত এ সময় আইনজীবীদের উদ্দেশে বলেন, এই শেষবারের মতো এ আবেদন তিনি মঞ্জুর করছেন। পরের তারিখে খালেদা জিয়া হাজির না থাকলে অভিযোগ গঠন ও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হবে।

রাজধানীর দারুস সালাম থানায় বিস্ফোরক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের নয়টি এবং মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে মামলাটি করা হয়। এসব মামলায় খালেদা জিয়া আগেও সময় নেন।

২৪ নিউজভিশন.কম>
নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে রাষ্ট্রপতি গঠিত অনুসন্ধান কমিটির কাছে ২৫টি রাজনৈতিক দল নাম দিয়েছে। দুটি দল নাম না দিলেও চিঠি দিয়ে নাম না দেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করেছে।

মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) বিকেল চারটার দিকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে নামগুলো ছয় সদস্যের অনুসন্ধান কমিটির কাছে দেওয়া হয়। কমিটির সদস্যরা এই নামগুলো যাচাই-বাছাই করতে বিকেল চারটার কিছু পরে সুপ্রিম কোর্টের জাজেস লাউঞ্জে বৈঠকে বসেছেন।

বেলা পৌনে চারটার দিকে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম ও অতিরিক্ত সচিব আবদুল ওয়াদুদ সচিবালয় থেকে নাম নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের জাজেস লাউঞ্জের উদ্দেশে রওনা হন।

অনুসন্ধান কমিটি মোট ৩১টি রাজনৈতিক দলের কাছে নাম চেয়ে চিঠি পাঠায়। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ ২৫টি দল পাঁচটি করে নাম জমা দিয়েছে। দুটি দল বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল—জাসদ (রব) চিঠি দিয়ে নাম না দেওয়ার কারণ উল্লেখ করেছে।

আর নাম বা কোনো চিঠি দেয়নি এমন চারটি দল হলো ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, বিকল্পধারা বাংলাদেশ, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিশ ও গণফোরাম।

সরকারের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, মন্ত্রিপরিষদে চিঠি দেওয়া ২৭টি দলের মধ্যে ২৫টি দলের মোট ১২৫টি নাম তাঁরা পৌঁছে দিয়েছেন। তাঁরা নামগুলোর মধ্যে মিল খোঁজেননি। এটা অনুসন্ধান কমিটিই করবে। ওই কর্মকর্তা বলেন, হয়তো একই নাম অনেকগুলো দল প্রস্তাব করেছে। সেটিই কমিটি যাচাই-বাছাই করে তাঁরা সিদ্ধান্ত নেবেন।

২৪ নিউজভিশন.কম>
নির্বাচন কমিশনার হিসেবে নিয়োগের জন্য পাঁচটি করে নাম জমা দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপিসহ ২৪ টি রাজনৈতিক দল। মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) বেলা দুইটা পর্যন্ত মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে নামগুলো জমা দেয় এই রাজনৈতিক দলগুলো।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আবদুল ওয়াদুদ সাংবাদিকদের কাছে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, বেলা তিনটা পর্যন্ত দলগুলো নাম জমা দিতে পারবে।
মন্ত্রিপরিষদে নাম জমা দেওয়া শেষে আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ বলেন, ‘একটি খামে করে সৎ, যোগ্য, নিরপেক্ষ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী পাঁচজনের নাম জমা দেওয়া হয়েছে।’
সোমবার রাতে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী ও উপদেষ্টা পরিষদের যৌথসভায় নামগুলো চূড়ান্ত করা হয়।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে নাম জমা দিয়েছে বিএনপিও । দলটির দায়িত্বশীল এক নেতা জানিয়েছেন, নাগরিক সমাজের লোকদের নাম দেওয়া হয়েছে। যাঁদের নাম দেওয়া হয়েছে, তাঁদের সঙ্গে রাজনৈতিক দলের কোনো সম্পর্ক নেই। তাঁরা সমাজে গ্রহণযোগ্য বলে বিবেচিত। বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, বিএনপি চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব এ বি এম আবদুস সাত্তার নামের তালিখার একটি খাম জমা দেন।
রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে গত রোববার দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে নাম দেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। জোটের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গত রাতে বাংলাদেশ ন্যাপ, বিজেপি, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি ও জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম তাদের প্রস্তাবিত নাম বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে পৌঁছে দিয়েছে।

২৪ নিউজভিশন.কম>
অনুসন্ধান কমিটির আহ্বানে সাড়া দিয়ে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে নিয়োগের জন্য আলাদাভাবে পাঁচটি করে নাম প্রস্তাব করবে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোটের শরিক দলগুলো। পৃথকভাবে দলগুলো নাম প্রস্তাব করলেও কয়েকটি নাম সব দলের প্রস্তাবে থাকবে বলে জোট সূত্রে জানা গেছে। সোমবার (৩০ জানুয়ারি) বিকেলে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জোটের মহাসচিব পর্যায়ের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

এর আগে রোববার রাতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির মুলতবি বৈঠকে বিএনপি সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তারা অনুসন্ধান কামটিকে নাম দেবে। বিএনপির এ সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে জোটের সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো।
বিএনপি জোটের শরিক বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের বলেন, বিএনপি জোট ইতিবাচক রাজনীতিতে থাকতে চায়। জোটের মহাসচিবদের বৈঠকে অনুসন্ধান কমিটিকে নাম দেওয়ার বিষয়ে সবাই একমত হয়েছেন।
জোটের সূত্র জানায়, বিএনপিসহ তাদের জোটভুক্ত সাতটি দল নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য গঠিত অনুসন্ধান কমিটির চিঠি পেয়েছে। দলগুলো সোমবার (৩০ জানুয়ারি) রাতে নাম চূড়ান্ত করবে। দলগুলো আলাদাভাবে পাঁচটি করে নাম প্রস্তাব করবে। তবে নির্দিষ্ট কয়েকটি নাম সব দলের প্রস্তাবেই থাকবে। বিএনপির পক্ষ থেকে সোমবার সন্ধ্যায় শরিক দলগুলোকে নাম নিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে যেতে বলা হয়েছে। সেখানে নামগুলো চূড়ান্ত করা হবে।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির একজন নেতা জানান, রোববার রাতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে খালেদা জিয়া তাঁদের বলেছেন, কেউ নাম প্রস্তাব করতে চাইলে তা যেন আলাদাভাবে খালেদা জিয়ার কাছে দেওয়া হয়। পরে তিনি সেখান থেকে নাম চূড়ান্ত করবেন।
সোমবারের জোটের বৈঠকে জামায়াতের পক্ষে মঞ্জুরুল ইসলাম, এলডিপির মহাসচিব রেদওয়ান আহমেদ, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, কল্যাণ পার্টির মহাসচিব আমিনুর রহমানসহ শরিক দলের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা জানান, তাঁদের জোটের শরিকদের মধ্যে বিএনপি, এলডিপি, জাতীয় পার্টি (বিজেপি), বাংলাদেশ ন্যাপ, খেলাফত মজলিস, জমিয়তে ওলামা ইসলাম ও মুসলিম লীগ (এমএল)—এই সাতটি দল নাম প্রস্তাব করার জন্য অনুসন্ধান কমিটির চিঠি পেয়েছে।

বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ২০১৭

২৪ নিউজভিশন.কম>
নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে আপিল বিভাগের বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে। আজ বুধবার (২৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনও জারি করা হয়।
প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সার্চ কমিটির বাকি পাঁচজন সদস্য হলেন হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান, মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক (সিএজি) মাসুদ আহমেদ, সরকারি কর্মকমিশনের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য শিরীণ আখতার।
নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে সকালে আপিল বিভাগের একজন বিচারপতির নেতৃত্বে ছয় সদস্যের সার্চ কমিটি গঠন করতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে চিঠি দেন রাষ্ট্রপতি। নিয়ম অনুযায়ী সার্চ কমিটির সদস্যদের দেওয়া নামগুলো থেকে রাষ্ট্রপতি প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং অন্য কমিশনারদের নিয়োগ দেবেন।
২০১২ সালের ২৩ জানুয়ারি প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান নির্বাচন কমিশন গঠন করতে চার সদস্যবিশিষ্ট সার্চ কমিটি করেছিলেন। ওই কমিটিরও প্রধান ছিলেন বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। বাকি তিন সদস্য হিসেবে ছিলেন হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান, পদাধিকার বলে তৎকালীন মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক (সিএজি) আহমেদ আতাউল হাকিম এবং সরকারি কর্মকমিশনের তৎকালীন চেয়ারম্যান এ টি আহমেদুল হক চৌধুরী।
রাষ্ট্রপতির কার্যালয় এবং মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের দুটি সূত্র জানিয়েছে, সার্চ কমিটি গঠন করতে জিল্লুর রহমানের ওই ফর্মুলা বর্তমান রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদও অনুসরণ করেছেন। তবে সুশীল সমাজের প্রতিনিধি হিসেবে সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম এবং নারী প্রতিনিধি হিসেবে শিরীণ আখতারকে অন্তর্ভুক্ত করে এর আকার বাড়িয়েছেন।
সার্চ কমিটিতে থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে শিরীণ আখতার সাংবাদিকদের বলেন, ‘এই দায়িত্বকে সুন্দর এবং পবিত্র দায়িত্ব বলে মনে করছি। আশা করি, সুষ্ঠুভাবে এ দায়িত্ব পালন করতে পারব।’
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৬ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদানের পর থেকেই শিরীণ আখতার আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন হলুদ দলের সঙ্গে রয়েছেন। ২০১৪ সালে হলুদ দলের প্যানেল থেকে শিক্ষক সমিতির কার্যকরী সদস্য হয়েছিলেন।
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে দেওয়া জীবনবৃত্তান্ত থেকে জানা যায়, শিরীণ আখতারের বাবা মৃত আফসার কামাল চৌধুরী কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন।
নতুন কমিশন গঠন নিয়ে গত ১৮ ডিসেম্বর থেকে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা শুরু করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ মোট ৩১টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে রাষ্ট্রপতি আলোচনা করেন।

রাষ্ট্রপতির কার্যালয় সূত্র জানায়, রাষ্ট্রপতি রাজনৈতিক দলগুলোর দেওয়া প্রস্তাবগুলো যাচাই-বাছাই করে সার্চ কমিটি করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেন। সময়ের অভাবে এবার নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়ন বা অধ্যাদেশ জারি  করছেন না রাষ্ট্রপতি।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারিএকজন কমিশনার বাদে বর্তমান প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও অন্য নির্বাচন কমিশনারদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ।

Select Language