শুক্রবার, এপ্রিল ৩, ২০২০ | ১৫:৩৭
২০ চৈত্র, ১৪২৬ | ৯ শাবান, ১৪৪১
আলোচিত

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> অবশেষে চারহাত এক করে ফেললেন নির্মাতা সৃজিত মুখার্জি ও অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টায় সৃজিতের দক্ষিণ কলকাতার লেক গার্ডেনসের বাড়িতে স্পেশ্যাল ম্যারেজ অ্যাক্টে তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। বিয়েতে দুই পরিবারের লোকজন এবং কিছু বন্ধুবান্ধব উপস্থিত ছিলেন।
বিয়ের সময় সৃজিতের পরনে ছিল পাজামা, পাঞ্জাবি ও জহরকোট। আর মিথিলার পরনে লাল জামদানি।
বিয়েতে মিথিলার বাবা-মা ও মেয়ে আয়রাসহ পরিবারের অন্য সদস্য এবং সৃজিতের মা ও বোন ছাড়াও টালিউড তারকা রুদ্রনীল, শ্রীজাত, ইন্দ্রদীপ, যিশু, নীলাঞ্জনা, অনুপম, পিয়া উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গেছে। রেজিস্ট্রি ম্যারেজের পর টালিউডের অতিথিদের নিয়ে বিশেষ পার্টি হবে। জানা গেছে, মিথিলার পরিবার দুই কেজি ওজনের চারটি ইলিশ নিয়ে গেছেন সৃজিতের জন্য।

মিথিলা জানিয়েছেন, শনিবার মধুচন্দ্রিমায় তারা সুইজারল্যান্ড যাচ্ছেন। সেখানে মধুচন্দ্রিমার পাশাপাশি একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে মিথিলা পিএইচডির রেজিস্ট্রেশন করবেন। সব মিলিয়ে সুইজারল্যান্ডে এক সপ্তাহ থাকবেন তারা।
গত সেপ্টেম্বরে একটি ঘরোয়া পার্টিতে সৃজিত ও মিথিলাকে প্রথম একসঙ্গে দেখা যায়। এরপর ২৩ সেপ্টেম্বর সৃজিতের জন্মদিনের বিশেষ ছবিতেও পাওয়া যায় মিথিলাকে। সর্বশেষ তাদের দুজনকে ঢাকায় আর্মি স্টেডিয়ামে ফোকফেস্টে দেখা যায়।
এর আগে বাংলাদেশের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী তাহসানের সঙ্গে মিথিলার বিয়ে হয় ২০০৬ সালের ৩ আগস্ট। তাদের বিচ্ছেদ হয় ২০১৭ সালের জুলাইয়ে।

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> বঙ্গবন্ধু বিপিএলের জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মঞ্চ প্রায় প্রস্তুত। দুদিন পর এ মঞ্চ কাঁপাতে আসছেন ভারতের সালমান খান, ক্যাটরিনা কাইফ, সনু নিগম, কৈলাস খের; বাংলাদেশের শিল্পীদের মধ্যে থাকছেন জেমস ও মমতাজ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের টিকিটের দাম ও প্রাপ্তিস্থান জানিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।
মঞ্চের সামনে মিরপুর শের-এ বাংলা স্টেডিয়ামের মাঠে বসে সালমান খান ও ক্যাটরিনা কাইফের অনুষ্ঠান দেখতে হলে কিনতে হবে ১০ হাজার টাকার টিকিট। গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডে বসে দেখতে হলে নিতে হবে ২ হাজার ৫০০ টাকার টিকিট। সবচেয়ে ‘সুলভ’ ক্লাব হাউসের টিকিটের দাম ১ হাজার টাকা। আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, মাঠে কিংবা গ্যালারিতে বসে এই অনুষ্ঠান দেখার সুযোগ পাবেন মাত্র ৮ হাজার দর্শক। এর মধ্যে সৌজন্য টিকিট থাকছে ৩ হাজার। প্রায় ২৫ হাজার দর্শক ধারণক্ষমতাসম্পন্ন শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে মাত্র ৫ হাজার দর্শকের জন্য টিকিট ছাড়ছে বিসিবি।
বিপুলসংখ্যক দর্শকদের জন্য সরাসরি অনুষ্ঠান দেখার সুযোগ না রাখার ব্যাখ্যায় দুদিন আগে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান বলেছেন, ‘মঞ্চের পেছনে দিতে পারছি না, পাশেও দিতে পারছি না। আগে যে ধারণা ছিল, সেটা অনেক কমে গেছে। পিচ নষ্ট হতে পারে বা মাঠ নষ্ট হতে পারে, এমন ঝুঁকি নিতে পারব না।’
আগামী রোববারের জমকালো এই অনুষ্ঠানের টিকিট ছাড়া হচ্ছে শুক্রবার থেকে। টিকিটি সরাসরি কেনা যাবে সকাল সাড়ে নয়টা থেকে সন্ধ্যা ছয়টার মধ্যে। পাওয়া যাবে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের ১ নম্বর গেট ও সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামের বুথ থেকে।
অনুষ্ঠান উদ্বোধন করার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। গেট খোলা হবে বেলা আড়াইটায়। অনুষ্ঠান শুরু বিকেল সাড়ে চারটায়।
বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টিভি, মাছরাঙা টিভি ও নিউজ টুয়েন্টিফোর।

ক্রীড়াঙ্গন ডেস্ক> দক্ষিণ এশিয়ান গেমস (এসএ) দিয়েই আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অভিযান শুরু করেছে মালদ্বীপের মেয়েরা। অন্যদিকে বাংলাদেশের মেয়েরা নিয়মিত আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলা দল। দুই দলের শক্তির পার্থক্যটা তাই দিনের আলোর মতোই পরিষ্কার। পোখারায় বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) তা আরও প্রকটভাবেই বুঝল মালদ্বীপের মেয়েরা। বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের কাছে ২৪৯ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে মালদ্বীপ।
আগে ব্যাট করে ফারজানা ও নিগারের জোড়া সেঞ্চুরিতে ২ উইকেটে ২৫৫ রান তুলেছিল বাংলাদেশ। তাড়া করতে নেমে লড়াই করা দূরে থাক দাঁড়াতেই পারেনি মালদ্বীপের মেয়েরা। অলআউট হয়েছে মাত্র ৬ রানে! তবে বাংলাদেশের মেয়েরা মালদ্বীপকে এত কম রানে অলআউট করতে বেশ সময়ই নিয়েছে। ১২.১ ওভার পর্যন্ত খেলেছে মালদ্বীপের মেয়েরা।
এসএ গেমস ক্রিকেটের ফাইনাল আগেই নিশ্চিত করা বাংলাদেশের মেয়েদের বিশাল ব্যবধানের এ জয়টা কিন্তু প্রত্যাশিতই। কেননা, মালদ্বীপ এ ইভেন্টের দুর্বলতম দল। তবে ক্রিকেটপ্রেমীরা দলটিকে যতটা দুর্বল ভেবেছিলেন এ ফলের পর ভাবনাটা নিশ্চিতভাবেই আরও পেছাতে পারে—মালদ্বীপ নারী ক্রিকেট দল তাহলে কতটা দুর্বল!
বাংলাদেশের বোলার রিতু মনি প্রথম ওভারেই ৩ উইকেট নেন। এর মধ্যে দ্বিতীয় ও তৃতীয় বলে উইকেট পেলেও হ্যাটট্রিকের মুখ দেখেননি তিনি। এরপর নিজের দ্বিতীয় ওভারেও আরও ২টি উইকেটের দেখা পান রিতু। পরের ওভারে অধিনায়ক সালমা খাতুন নেন আরও ২ উইকেট। ৩ রান তুলতেই মালদ্বীপ ততক্ষণে ৬ উইকেট হারিয়েছে। আর ৩ রান তুলতেই বাকি ৪ উইকেট হারায় দলটি। ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন রিতু ও সালমা।

অনলাইন ডেস্ক> ইতালিতে ২০১৬ সালে এক ভয়ংকর ভূমিকম্প আঘাত হেনেছিল, যাতে প্রাণ হারিয়েছিল কয়েক শ মানুষ। সেই ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোয় কী ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে, তা নিয়ে পার্লামেন্টে বিতর্ক চলছিল। ঠিক এমন সময় প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে বসলেন এক আইনপ্রণেতা।
অবিশ্বাস্য হলেও এ ঘটনা ইতালির পার্লামেন্টে। গত বৃহস্পতিবার পার্লামেন্টে ওই বিতর্ক দেখতে এসেছিলেন কট্টর লোকরঞ্জনবাদী দল লিগ পার্টির নেতা ও আইনপ্রণেতা (এমপি) ফ্লাভিও ডি মুরোর প্রেমিকা এলিসা দে লিও।
এ বিতর্কের ফাঁকে স্পিকারের কাছ থেকে কথা বলার অনুমতি নেন ফ্লাভিও। তিনি বলেন, ‘আমরা যাঁরা এই কক্ষের সদস্য, জাতীয় জরুরি ইস্যু নিয়ে তাঁরা সব সময় ব্যস্ত থাকি। প্রতিদিন আমরা রাজনীতি নিয়ে বিতর্ক করি। কিন্তু যাঁরা আমাদের ভালোবাসেন, এসব করতে গিয়ে তাঁদের অবহেলা করি আমরা।’ এরপর তিনি একটি আংটি বের করে তাঁর প্রেমিকার দিকে ধরেন। তিনি বলেন, ‘আজকের দিনটা আমার জন্য বিশেষ। এলিসা, তুমি কি আমাকে বিয়ে করবে?’
এলিসা তখন হ্যাঁ কিংবা না কিছুই বলেননি। ফলে উদ্বেগ ছিল। তবে পরে ফ্লাভিও গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এলিসা তাঁর প্রস্তাব গ্রহণ করেছেন। তিনি বিয়েতে রাজি হয়েছেন। ফ্লাভিও বলেন, ‘আমরা বিয়ে করতে যাচ্ছি। তবে তারিখ এখনো ঠিক হয়নি।’

ক্রীড়াঙ্গন ডেস্ক> আইপিএলের নিলাম এবার হতে যাচ্ছে কলকাতায়। ১৯ ডিসেম্বর আইপিএলের নিলামে উঠতে নিবন্ধন করেছেন ৯৭১ ক্রিকেটার। ভারতীয় ক্রিকেটার আছেন ৭১৩, ভারতের বাইরের ২৫৮। এই ২৫৮ ক্রিকেটারের মধ্যে আছেন বাংলাদেশের ৬ বাংলাদেশি ক্রিকেটার।
আইপিএলের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট জানাচ্ছে, ৯৭১ ক্রিকেটারের মধ্যে ৭৩জনের দল পাওয়ার সুযোগ হবে। ভীষণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এ নিলামে থাকছে বাংলাদেশের ছয় ক্রিকেটারের নাম। বিসিবি সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ আইপিএল খেলার লক্ষ্যে নিবন্ধন করেছেন তামিম ইকবাল, মাহমুদউল্লাহ, মোস্তাফিজুর রহমান, সৌম্য সরকার, মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাসকিন আহমেদ। এই ছয় ক্রিকেটারের মধ্যে মোস্তাফিজ ও তামিমেরই আইপিএল-অভিজ্ঞতা আছে। মোস্তাফিজ হায়দরাবাদের হয়ে খেলেছিলেন ২০১৬ ও ২০১৭ সালে। ২০১৮’তে খেলেছেন মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়ে। গতবার বিসিবি তাঁকে অনুমতি দেয়নি নিবন্ধনের। তামিম ২০১২ সালে পুনে ওয়ারিয়র্সের স্কোয়াডে থাকলেও খেলার সুযোগ হয়নি তাঁর।
আইপিএলে বাংলাদেশের নিয়মিত মুখ যিনি—সাকিব আল হাসানের নিলামে ওঠার সুযোগ নেই, আগ থেকেই জানা। আইসিসির নিষেধাজ্ঞার কারণে তিনি এক বছর সব ধরনের ক্রিকেট থেকেই নিষিদ্ধ।
বিদেশি ক্যাটাগরিতে আইপিএলে সবচেয়ে বেশি নিবন্ধন করেছেন অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা। নিলামে উঠতে নিবন্ধন করেছেন ৫৫ অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ৫৪ ক্রিকেটার। শ্রীলঙ্কা ৩৯, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩৪, নিউজিল্যান্ড ২৪, ইংল্যান্ড ২২। এমনকি আফগানিস্তান থেকেও নিবন্ধন করেছেন ১৯ ক্রিকেটার। সে তুলনায় বাংলাদেশের সংখ্যাটা কমই।

২৪ নিউজভিশন ডেস্ক> ‘কেউ কেউ আমার পদত্যাগ দাবি করছেন। পদত্যাগ করা এক সেকেন্ডের বিষয়, তাতে যদি পেঁয়াজের দাম কমে। এই মন্ত্রিত্ব কাজ করার জন্য।’
বাজারে পেঁয়াজের ঘাটতি এবং চড়া দামের মধ্যে কথাগুলো বললেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি রোধে ব্যবসায়ীদের করণীয় নিয়ে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন বাণিজ্যমন্ত্রী।
আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক উপকমিটি রাজধানীর একটি হোটেলে মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) এই সভার আয়োজন করে। এতে বাণিজ্যমন্ত্রী ছাড়াও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য কাজী আকরাম উদ্দীন আহমদ, শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক উপকমিটির সদস্যসচিব আবদুছ সাত্তারসহ এফবিসিসিআইয়ের কয়েকজন পরিচালক, বিভিন্ন পণ্যের ব্যবসায়ী ও দোকানমালিক সমিতির নেতারা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে অল্প সময়ের মধ্যে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।
বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির কারণ তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বছরের শেষ দিকে প্রতি মাসে ১ লাখ টন পেঁয়াজ আসে। ভারত বন্ধ করে দেওয়ায় এসেছে ২৫ হাজার টন করে। মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আসত। সেখানে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় দাম বেড়ে গেছে। এই অঞ্চলের সব দেশেই পেঁয়াজের দাম চড়া।
পেঁয়াজের বাজার সামাল দিতে নানা উদ্যোগের কথা তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, ‘অন্য দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানির জন্য ব্যবসায়ীদের অনুরোধ করার পর তারা উদ্যোগী হয়। প্রধানমন্ত্রী নিজে এস আলমের প্রধানের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন।’
কোনো মুনাফা ছাড়া পেঁয়াজ আমদানি করে দেওয়ায় সিটি, মেঘনা ও এস আলমকে ধন্যবাদ জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, তাদের পেঁয়াজের খরচ পড়েছে কেজিপ্রতি সাড়ে ৪২ টাকা। এ পেঁয়াজ টিসিবিকে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু এর বাইরে অনেকে আমদানি করছে, সেটা তো চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে। মন্ত্রী বলেন, এই মুনাফালোভীদের মূল্যবোধ সংকটের সময়ও জাগ্রত হয় না।
বক্তব্য দেওয়ার সময় ১৯৬৬ সাল থেকে রাজনীতি ও ১৯৭২ সাল থেকে ব্যবসা করার কথা উল্লেখ করেন বাণিজ্যমন্ত্রী।
আগামী তিন বছরে পেঁয়াজে স্বাবলম্বী হওয়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে। এবার নতুন পেঁয়াজ উঠলে ভারতীয় পেঁয়াজ আমি বন্ধ করে দেব।’
অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ দোকানমালিক সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন বলেন, খুচরা পর্যায়ে পেঁয়াজ বিক্রি কমে গেছে। মানুষের মধ্যে ঝোঁক নেই। কারণ সবাই দেশকে ভালোবাসে। তিনি বলেন, ৩০-৩৫ টাকার পেঁয়াজ ২৫০ টাকা হয়েছে। আশপাশের দেশেও দাম ১২০ টাকার কাছাকাছি। তবে দেশে ২৫০ টাকা হওয়ার কারণ নেই।
আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক উপকমিটির সদস্যসচিব আবদুছ সাত্তার বলেন, এক শ্রেণির মুনাফাখোরের উন্নয়ন দেখে মাথা খারাপ হয়ে গেছে। তাদের লক্ষ্য কীভাবে সরকারকে ঠেকানো যায়। বাজার খারাপ করে তারা ক্ষমতায় আসতে পারবে না।
অনুষ্ঠানে বিভিন্ন পণ্যের ব্যবসায়ীরা বক্তব্য দেন। পুরান ঢাকার ব্যবসায়ী গোলাম মাওলা বলেন, ‘কেউ যদি সরকারকে বিপাকে ফেলতে দামায় বাড়ায়, তাহলে ব্যবস্থা নিন। আমরা আন্দোলন করব না। তবে যৌক্তিক হতে হবে।’
শ্যামবাজারের ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. সেলিম বলেন, এবার মৌসুমের শেষ দিকে বৃষ্টির কারণে পেঁয়াজের ক্ষতি হয়েছিল। ফলে কৃষকেরা ঘরে মাচা করে পেঁয়াজ সংরক্ষণ করতে পারেনি। তিনি বলেন, গুদামে পেঁয়াজ রাখা যায় না। তিন দিন পরই পচন ধরে।

অনলাইন ডেস্ক> প্রতিরক্ষা চুক্তি ‘আকসা’ ও ‘জিসোমিয়া’ সইয়ের জন্য বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র আলোচনা চালিয়ে যেতে রাজি হয়েছে। ২০১৮ সাল থেকে এ নিয়ে দুই দেশ আলোচনার টেবিলে আছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কূটনৈতিক সূত্রগুলো সংবাদমাধ্যমে এসব তথ্য জানিয়েছে।
দুই দিনের সফরে মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) সকালে প্রথমবারের মতো ঢাকায় এসেছেন এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় নিরাপত্তা বিষয়ক সহকারী মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী র‍্যান্ডল শ্রাইভার। তিনি প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিক ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভীর সঙ্গে আলোচনা করেন। তাঁদের এই আলোচনায় বিষয়টি গুরুত্ব পায়।
মঙ্গলবার দিনের প্রথম ভাগে প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা বিষয়ক সরকারের একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে বৈঠক করেন র‍্যান্ডল শ্রাইভার। এরপর বিকেলে তিনি প্রথমে তারিক আহমেদ সিদ্দিক পরে গওহর রিজভীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।
প্রধানমন্ত্রীর দুই উপদেষ্টার সঙ্গে আলোচনার বিষয়ে জানতে চাইলে কূটনৈতিক সূত্রগুলো এই প্রতিবেদককে জানায়, প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা খাতে দুই দেশের মধ্যে এখন যে সহযোগিতা আছে, তা বাড়ানোর ওপর জোর দিয়েছে দুই পক্ষই। অবশ্য প্রতিরক্ষা খাতে সহযোগিতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তরের জ্যেষ্ঠ ওই কর্মকর্তা দুই দেশের সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর মধ্যে সরাসরি সহযোগিতা ওপর গুরুত্ব দিয়েছে। প্রতিরক্ষা খাতে কর্মদক্ষতা বাড়াতে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন বিশেষায়িত প্রশিক্ষণে বাংলাদেশের কর্মকর্তাদের বেশি সংখ্যায় নেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে ঢাকা।
জানা গেছে, দুই পক্ষের আলোচনায় অস্ত্র বিষয়ক কেনাকাটা বিষয়ক চুক্তি-আকসা (একুইজেশন অ্যান্ড ক্রস-সার্ভিসিং অ্যাগ্রিমেন্ট) এবং অস্ত্র বিষয়ক গোপন তথ্য বিনিময় ও সুরক্ষার চুক্তি-জিসোমিয়ার (জেনারেল সিকিউরিটি অব মিলিটারি ইনফরমেশন অ্যাগ্রিমেন্ট) প্রসঙ্গটি এসেছে। যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে বাংলাদেশ উন্নত প্রযুক্তির হেলিকপ্টার ও রাডার কেনার আগ্রহ দেখিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের আইন অনুযায়ী কোনো দেশের কাছে উন্নত প্রযুক্তির সমরাস্ত্র বিক্রির আগে সেই দেশের সঙ্গে জিসোমিয়া সই করার বাধ্যবাধকতার প্রসঙ্গটি উল্লেখ করেন র‍্যান্ডল শ্রাইভার । এই প্রেক্ষাপটে দুই দেশ চুক্তি দুটি সইয়ের জন্য আলোচনা চালিয়ে যেতে রাজি হয়েছে।
কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, সামুদ্রিক নিরাপত্তার বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে সহকারী মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সাগরের বুকে বুকে নতুন চ্যালেঞ্জের প্রসঙ্গ টেনেছেন। এই চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলায় দুই দেশের এক সঙ্গে কাজের সুযোগের কথাও উল্লেখ করেন তিনি। সন্ত্রাসবাদ দমনে সহযোগিতায় সাফল্যের প্রসঙ্গ টেনে দুই পক্ষ সন্তোষ প্রকাশ করেছে। র‍্যান্ডল শ্রাইভার সন্ত্রাসবাদ দমনে বাংলাদেশের সামর্থ্য বাড়াতে যুক্তরাষ্ট্র আগ্রহী বলেও জানিয়েছেন।
বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার প্রেক্ষাপটে রোহিঙ্গা সমস্যার প্রসঙ্গটি আলোচনায় এসেছে। সহকারী মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী র‍্যান্ডল শ্রাইভার প্রধানমন্ত্রীর দুই উপদেষ্টাকে জানিয়েছেন, এ সমস্যার একটি স্থায়ী সমাধানের জন্য যুক্তরাষ্ট্র দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট আসিয়ানের সদস্যদের ভূমিকা রাখার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাবে।

আনন্দ ভুবন ডেস্ক> এন্ড্রু কিশোর এখন ক্যানসারে আক্রান্ত। সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন। ব্যয়বহুল এই চিকিৎসা চালানোর জন্য গত অক্টোবর মাসের শেষ দিকে নিজের একটি ফ্ল্যাট বিক্রি করেছেন। দেশের জনপ্রিয় এই সংগীতশিল্পীর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত ১৮ সেপ্টেম্বর তাঁর ক্যানসার ধরার পর তিনি সিদ্ধান্ত নেন, চিকিৎসার জন্য তিনি কারও কাছ হাত পাতবেন না। তাই রাজশাহী শহরে ভদ্রা আবাসিক এলাকায় পাঁচ বছর আগে কেনা ফ্ল্যাটটি ৩০ লাখ টাকায় বিক্রি করেছেন। যিনি কিনেছেন, তাঁর কাছ থেকে আরও পাঁচ লাখ টাকা পাওয়ার সম্ভাবনা আছে।
জানা গেছে, গত কয়েক বছর যাবৎ এন্ড্রু কিশোর প্রায় প্রতি মাসেই রাজশাহীতে যাওয়া–আসা করেছেন। রাজশাহীতে গিয়ে যেন তাঁর থাকার সমস্যা না হয়, সে কারণেই তিনি অনেক কষ্ট করে ফ্ল্যাটটি কিনেছিলেন। কিন্তু নিজের চিকিৎসার খরচ জোগানোর জন্য শেষ পর্যন্ত তাঁকে সেই ফ্ল্যাট বিক্রি করতে হয়েছে।
২০১২ সালে নিজের ওস্তাদের নামে রাজশাহীতে আব্দুল আজিজ বাচ্চু স্মৃতি সংসদ গড়ে তোলেন এন্ড্রু কিশোর। এই সংগঠন থেকে নিয়মিত ত্রৈমাসিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হতো। এসব অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন রাজশাহী ও এর আশপাশের এলাকার শিল্পীরা। প্রতিটি অনুষ্ঠানেই উপস্থিত থাকতেন এন্ড্রু কিশোর। সংগঠনটি দুস্থ ও অসহায় শিল্পীদের নানাভাবে সহায়তা করেছে। এ ছাড়া সংগঠনটি নিয়ে এন্ড্রু কিশোর নানা সামাজিক কার্যক্রমেও অংশ নিয়েছেন। গত বছর বন্যায় নিজে প্রত্যন্ত এলাকায় গিয়ে ত্রাণ বিতরণ করেছেন। এই সংগঠনের কার্যক্রম সচল রাখার জন্য তিনি নিয়মিত রাজশাহী যাওয়া–আসা করতেন।
এন্ড্রু কিশোরের এখন একমাত্র সম্বল মিরপুর ১০ নম্বর সেকশনের সেনপাড়া এলাকার একটি ফ্ল্যাট। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, এ ছাড়া তাঁর আর কোনো সম্পদ নেই।
এরই মধ্যে এন্ড্রু কিশোরের চিকিৎসা বাবদ এক কোটি টাকার বেশি খরচ হয়েছে। সোমবার (২ ডিসেম্বর) জানা গেছে, দেশের বরেণ্য এই সংগীতশিল্পী চিকিৎসায় সহায়তার জন্য অনেকেই পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন, হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তাঁদের কাছ থেকে এ পর্যন্ত ৫০ লাখ টাকা পাওয়া গেছে।
সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে এরই মধ্যে এন্ড্রু কিশোরকে কেমোথেরাপি দেওয়া শুরু হয়েছে। গত ২৪ নভেম্বর তিনি প্রথম আলোকে জানিয়েছেন, এ পর্যায়ের চিকিৎসার জন্য আগামী ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তাঁকে সেখানে থাকতে হবে। ২৬ নভেম্বর থেকে কেমোথেরাপির পরবর্তী সাইকেল শুরু হয়েছে। হাসপাতালের চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, ৩টি সাইকেলে আরও ১২টি কেমোথেরাপি দেওয়া হবে। তাঁর এই চিকিৎসা সম্পন্ন করার জন্য আরও ২ কোটি ১০ লাখ টাকা প্রয়োজন।
এন্ড্রু কিশোরের চিকিৎসার জন্য তহবিল গঠনের আবেদন করেছেন তাঁর স্ত্রী লিপিকা এন্ড্রু। ‘গো ফান্ড মি’ নামের ওয়েবসাইটে এটি করা হয়েছে। হাসপাতালের চিকিৎসা বোর্ডের কাগজপত্র নিয়ে সিঙ্গাপুরপ্রবাসী বাংলাদেশিরা এই অনলাইন ফান্ডিংয়ের পেজ চালু করেছেন।
এন্ড্রু কিশোর বললেন, ‘এমনটি আমি চাইনি। বাধ্য হয়ে এটি খুলতে হয়েছে। আর পারছি না।’
এন্ড্রু কিশোরের চিকিৎসার জন্য অর্থ সংগ্রহের সার্বিক তত্ত্বাবধান করছেন মোমিন বিশ্বাস। তিনি সরকারসহ দেশের চলচ্চিত্র, সংগীত, টেলিভিশনসহ বিভিন্ন অঙ্গনের লোকজনকে এন্ড্রু কিশোরের চিকিৎসার সহায়তায় এগিয়ে আসার জন্য অনুরোধ করেছেন।

২৪ নিউজভিশন ডেস্ক> সুপ্রিম কোর্টের এফিডেভিট শাখায় সিসি ক্যামেরা বসানোর পরও অনিয়ম ঠেকানো যাচ্ছে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। সোমবার আপিল বিভাগে একটি মামলার শুনানি চলাকালে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের উদ্দেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।
সোমবার (২ ডিসেম্বর) আপিল বিভাগের কার্যতালিকায় একটি মামলা ৩ নম্বর ক্রমিকে থাকার কথা; কিন্তু অদৃশ্যভাবে সেটি ৯০ নম্বর ক্রমিকে যায়। বিষয়টি তখন আদালতের নজরে আনেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তখন এফিডেভিট শাখার কার্যক্রম নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে প্রধান বিচারপতি বলেন, কী আর করব বলুন? এফিডেভিট শাখায় সিসি ক্যামেরা বসিয়েও অনিয়ম রুখতে পারছি না। এ সময় আপিল বেঞ্চে আরও চার বিচারপতি উপস্থিত ছিলেন।
প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, সিসি কামেরা বসালাম। এখন সবাই বাইরে এসে এফিডেভিট করে। তখন অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, অনেকেই মামলার তালিকা ওপর-নিচ করে কোটিপতি হয়ে গেছেন।
এ সময় প্রধান বিচারপতি বলেন, রাষ্ট্রপক্ষের অনেক আইনজীবীও আদালতে আসেন না। বেতন বেশি হওয়ায় এমন হচ্ছে। বেতন কম হলে তারা ঠিকই কষ্ট করে আদালতে আসতেন। এ পর্যায়ে প্রধান বিচারপতি তাৎক্ষণিক এক আদেশে ডেপুটি রেজিস্ট্রার মেহেদী হাসানকে আপিল বিভাগে তলব করেন। তিনি আপিল বিভাগে হাজির হয়ে ব্যাখ্যা দিলেও তাতে অসন্তোষ প্রকাশ করেন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ। পরে ডেপুটি রেজিস্ট্রারকে ভবিষ্যতে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালনের বিষয়ে সতর্ক করে দেওয়া হয়।

২৪ নিউজভিশন ডেস্ক> বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে রেলওয়ের সেবা সপ্তাহ। এ উপলক্ষে কমলাপুর, চট্টগ্রামসহ রেলের বড় স্টেশনগুলোতে যাত্রীদের বিনা মূল্যে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা দেবেন রেলওয়ে হাসপাতালের চিকিৎসকেরা। যাত্রীদের ব্লাড প্রেশার ও ডায়াবেটিকস পরীক্ষা করা হবে চিকিৎসা সেবার আওতায়।
বুধবার (৪ ডিসেম্বর) রেলপথ মন্ত্রণালয়ের ৮ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। এই উপলক্ষে ৪ থেকে ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সেবা সপ্তাহ পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।
রেলওয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে মন্ত্রণালয় ও রেলওয়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে ১০টি টাস্কফোর্স গঠন করা হচ্ছে। তারা সূচি মেনে ট্রেন চলাচল নিশ্চিত করা, প্ল্যাটফর্ম পরিচ্ছন্ন রাখা, চলন্ত ট্রেনের টয়লেট পরিষ্কার কি না তা তদারক করবে। এ ছাড়া রেল লাইনের ওপর থাকা পদচারী সেতু ও উড়াল সড়কে নিরাপত্তা ঝুঁকি আছে কি না তাও পরীক্ষা করবে। চলন্ত ট্রেনের পানি ও পর্যাপ্ত বৈদ্যুতিক বাতির ব্যবস্থা আছে কিনা, যাত্রীদের সঙ্গে ট্রেনের কর্মীদের আচরণ ও ট্রেন চলাচলে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের তৎপরতাও পর্যবেক্ষণ করবে টাস্কফোর্সের সদস্যরা।
Select Language