পাঁচ মাসে রেমিট্যান্স বেড়েছে ২৩%

পাঁচ মাসে রেমিট্যান্স বেড়েছে ২৩%

অর্থ ও বাণিজ্য ডেস্ক> প্রণোদনা ও ডলারের দর বৃদ্ধির কারণে প্রবাসীদের দেশে অর্থ পাঠানোর পরিমাণ বাড়ছে উল্লেখযোগ্য হারে। চলতি বছরের শুরু থেকে রেমিট্যান্স আসার পালে যে হাওয়া লেগেছে, তা অব্যাহত রয়েছে। ইতিবাচক এ ধারায় গত মাস নভেম্বর পর্যন্ত পাঁচ মাসে ৭৭২ কোটি ডলারের সমপরিমাণ অর্থ পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। আগের বছরের একই সময়ে এসেছিল ৬২৯ কোটি ডলার। এ হিসাবে পাঁচ মাসে রেমিট্যান্স বেড়েছে ১৪৩ কোটি ডলার, যা শতকরা হিসাবে প্রায় ২৩ শতাংশ।
সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, একক মাস হিসেবে গত নভেম্বরে ১৫৬ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। আগের বছরের একই মাসে এসেছিল ১১৮ কোটি ডলার। এ হিসাবে একই মাসে রেমিট্যান্স বেড়েছে ৩৮ কোটি ডলার বা ৩২ শতাংশ বেশি। অবশ্য আগের মাস অক্টোবরে রেমিট্যান্স আসে ১৬৪ কোটি ডলার।
ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিট্যান্স আহরণ বাড়াতে চলতি অর্থবছর থেকে ২ শতাংশ হারে নগদ প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার। কোনো ঝামেলা ছাড়াই সুবিধাভোগীরা প্রণোদনার অর্থ পাচ্ছেন। সম্প্রতি এক সার্কুলারে ডলার ভিন্ন অন্য মুদ্রায় দেড় লাখ টাকার সমপরিমাণ অর্থ পাঠালেও প্রণোদনা পেতে কাগজ লাগবে না বলে স্পষ্টীকরণ করা হয়েছে। একবারে এর চেয়ে বেশি অর্থ পাঠালে অবশ্য কাগজপত্র দিতে হবে এবং এগুলো জমার সময়সীমা পাঁচ দিন থেকে বাড়িয়ে ১৫ দিন করা হয়েছে। এর সঙ্গে দেশে ডলারের বিপরীতে টাকার দাম বাড়ায় আগের চেয়ে বেশি অর্থ পাচ্ছেন প্রবাসীদের সুবিধাভোগীরা। এ কারণে রেমিট্যান্স বেড়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।
অন্যদিকে, রপ্তানিকারকদের সুবিধা দিলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকও ডলারের দর কিছুটা বাড়াচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার প্রতি ডলার ১০ পয়সা বাড়িয়ে সাড়ে ৮৪ টাকায় উন্নীত করা হয়েছে। এর আগে গত মাসের মাঝামাঝি বাড়ানো হয় ৫ পয়সা। গত এক বছরে প্রতি ডলারে বেড়েছে এক টাকা। এ সুফলও পাচ্ছেন প্রবাসীরা। এতে ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিট্যান্স বাড়ছে।