বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে কল্যাণ ও শান্তি কামনা

বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে কল্যাণ ও শান্তি কামনা

২৪ নিউজভিশন.কম> দেশের কল্যাণ, দুনিয়া ও আখিরাতের শান্তি কামনা করে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শনিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শেষ হলো। তাবলিগ জামাত আয়োজিত ৫৪তম বিশ্ব ইজতেমার এ পর্ব পরিচালনা করেন মাওলানা জোবায়েরপন্থীরা।
আখেরি মোনাজাতে আত্মশুদ্ধি ও নিজ নিজ গুনাহ মাফের পাশাপাশি সব বালা-মুসিবত থেকে দুনিয়ার হেফাজতের জন্য দুই হাত তুলে মহান আল্লাহর দরবারে রহমত প্রার্থনা করা হয়। এ সময় ‘আমিন, আল্লাহুম্মা আমিন’ ধ্বনিতে মুখরিত ছিল ময়দান প্রাঙ্গণ। মোনাজাতে লাখ লাখ মুসল্লি আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আকুতি জানান। মোনাজাত পরিচালনা করেন বিশ্ব তাবলিগ জামাতের শীর্ষস্থানীয় মুরব্বি বাংলাদেশের কাকরাইল মসজিদের ইমাম হজরত মাওলানা মুহাম্মদ জোবায়ের। তিনি আরবি ও বাংলা ভাষায় মোনাজাত পরিচালনা করেন।
সকালে দিকনির্দেশনামূলক বয়ানের পর লাখ লাখ মানুষের প্রতীক্ষার অবসান ঘটে সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে। জনসমুদ্রে হঠাৎ নেমে আসে পিনপতন নীরবতা। যে যেখানে ছিলেন, সেখানে দাঁড়িয়ে কিংবা বসে হাত তোলেন আল্লাহর দরবারে। কান্নায় বুক ভাসান তাঁরা। ২৪ মিনিটব্যাপী মোনাজাতে মাওলানা জোবায়ের প্রথম ১৩ মিনিট আরবিতে এবং শেষ ১১ মিনিট বাংলায় দোয়া করেন। মুঠোফোন ও টেলিভিশনে সরাসরি প্রচারের সুবাদে দেশ-বিদেশের আরও লাখ লাখ মানুষ একসঙ্গে হাত তোলেন আল্লাহর দরবারে। অনেকে বিমানবন্দর গোল চত্বর ও উত্তরা থেকে আখেরি মোনাজাতে অংশ নেন। আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে টঙ্গী, গাজীপুর, উত্তরাসহ চারপাশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, কলকারখানা, মার্কেট, বিপণিবিতান বন্ধ ছিল।
শনিবার মধ্যরাতের আগে মাওলানা জোবায়ের অনুসারী মুসল্লিরা ইজতেমা মাঠ ত্যাগ করবেন। আর মাঠ বুঝিয়ে দেওয়া হবে প্রশাসনের কাছে। প্রশাসন মাওলানা সা’দ অনুসারীদের কাছে ময়দান বুঝিয়ে দেবেন। রোববার বাদ ফজর থেকে মাওলানা সা’দ অনুসারীদের পরিচালনায় বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় অংশ শুরু হবে। সোমবার আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে এ বছরের বিশ্ব ইজতেমা।